Thursday, 10 January 2019

চীনের রাজনৈতিক ইতিহাসে একশত দিনের সংস্কার বা সংস্কারবাদী আন্দোলন

উনবিংশ শতাব্দীর শেষ দশকে চীনের সংস্কার আন্দোলনের হাওয়া উঠে| এক কথায় আমাদের বলা উচিত যে, সেই সময় পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে অনেক রাজপুরুষও সংস্কার চাই ছিলেন| 1898 খ্রিস্টাব্দে 11 ই জুন সম্রাট কুয়াংসু একটি রাজকীয় আদেশ জারি করেন এবং সংস্কারের কথা ঘোষণা করেন| এরপর 100 দিন ধরে বিভিন্ন সংস্কারমূলক আইন প্রবর্তিত হতে থাকে| 100 দিন ধরে প্রবর্তিত এইসব সংস্কারমূলক আইনকে "100 দিবসের সংস্কার" বা "একশত দিনের সংস্কার" বা "সংস্কারবাদী আন্দোলন" বলা হয়|

বস্তুত "একশত দিনের সংস্কার" নামে পরিচিত হলেও, এর মোট সময়কাল ছিল 103 দিনের (11 ই জুন 1898-16 সেপ্টম্বর 1898)| এই আন্দোলনের সর্বোচ্চ নেতা ছিলেন কাং ইউ ওয়েই|

চীনের  মানচিত্র



1898 খ্রিস্টাব্দে জুন থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত নতুন ধরনের রাজকীয় আদেশের মাধ্যমে তৎকালীন চীনের শাসন ক্ষেত্রে, শিক্ষা ক্ষেত্রে এবং রাজনীতিতে কতগুলি গুরুত্বপূর্ণ সংস্কার চালু হয়েছিল| অপ্রয়োজনীয় পদ ও দপ্তরগুলি তুলে দেওয়া হয়েছিল| মাঞ্চুদের আর্থিক অনুদান দেওয়ার রীতি বন্ধ করে দেওয়া হয়| ব্যয়বহুল গ্রীন স্ট্যান্ডার্ড বাহিনী অপ্রয়োজনীয় ঘোষণা করে বাতিল করা হয়|

সম্রাট কুয়াংসু সংস্কারের ফলশ্রুতি হিসাবে পুরনো ও অব্যবহৃত মন্দিরগুলি একটি বিদ্যালয়ে পরিণত হয়েছিল| এই প্রসঙ্গে উল্লেখযোগ্য যে, তৎকালীন সময়ে পিকিং বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে উঠেছিল| বিদ্যালয় ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে রাজনীতি ও বিজ্ঞান চর্চা আবশ্যিক বিষয় হিসাবে মান্যতা দেওয়া হয়, এর সঙ্গে সঙ্গে নতুন গবেষণা এবং আবিষ্কারকে উৎসাহিত করার জন্য গবেষককে পুরস্কার দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছিল| একটি অনুবাদ কমিটির উপর বিদেশী বই অনুবাদ করার দায়িত্ব অর্পণ করা হয়েছিল|

সংস্কার আন্দোলন যখন বিভিন্ন প্রদেশে সরিয়ে পড়ে, তখন কিছু চিন্তাবিদ বিভিন্ন মতাদর্শকে স্থায়ী রূপ দিতে বদ্ধপরিকর হয়েছিলেন| এদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন কাং ইউ ওয়েই| তার চিন্তায় মানব সভ্যতার ইতিহাসে অগ্রগতির তিনটি যুগ ছিল, যথা- প্রথমটি ছিল বিশৃঙ্খলার যুগ, দ্বিতীয়টি ছিল আসন্ন শান্তির যুগ এবং তৃতীয়টি ছিল মহান শান্তির যুগ|

সংস্কার পন্থীরা ক্ষমতায় এসে একটি সরকারি বাজেট তৈরি করার দিকে নজর দেন| এই সময় দুটি পৃথক মন্ত্রণালয় বা দপ্তর চীনে খোলা হয়| একটি দপ্তর পেল নতুন রেলপথ নির্মাণ এবং খনি সংক্রান্ত বিষয়গুলি এবং দ্বিতীয়টি দপ্তরটি কৃষি, শিল্প এবং বাণিজ্য সংক্রান্ত বিষয়গুলি দেখাশোনার দায়িত্ব পেল|

তবে 100 দিনের সংস্কার শেষ পর্যন্ত ব্যর্থ হয়েছিল|বিধবা সম্রাজ্ঞী জু-সি ছিলেন প্রতিক্রিয়াশীল এবং সংস্কার বিরোধী| তিনি ইউ-ইয়াং-সি-কাও নামে জনপ্রিয় সামরিক নেতার সাহায্যে গ্রহণ করে সম্রাটকে কুয়াংসুকে গ্রেফতার করেন এবং চীনে একশো দিনের সংস্কারের অবসান ঘটে|

এই সংস্কারের ব্যর্থতা আলোচনা করতে গিয়ে ঐতিহাসিক জ্যাক গ্রে বলেছেন, 100 দিবস ব্যর্থ হয়েছিল কারণ চীনের জনমত তখনও অসংগঠিত ও অস্পৃষ্ট ছিল| সংস্কারপন্থীরা তাদের কর্মসূচিতে কৃষির উন্নতির পথে চূড়ান্ত অবহেলা প্রদর্শন করেছিল|তদানীন্তন চীনে কৃষির উন্নতি না ঘটিয়ে অন্য কোন উন্নতি করা মোটেই সম্ভব ছিল না| সংস্কার আন্দোলনের ব্যর্থতার পরেই একটি বৃহৎ গণবিদ্রোহ প্রায় সমগ্র চীনকে আচ্ছন্ন করে রেখেছে|

তথ্যসূত্র 

  1. অমিত ভট্টাচার্য, "চীনের রূপান্তরের ইতিহাস 1840-1969"
  2. Jonathan Fenby, "The Penguin History of Modern China".
সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ| আশাকরি আমাদের এই পোস্টটি আপনার ভালো লাগলো| আপনার যদি এই পোস্টটি সম্বন্ধে কোন প্রশ্ন থাকে, তাহলে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে জানাতে পারেন এবং অবশ্যই পোস্টটি শেয়ার করে অপরকে জানতে সাহায্য করুন|
                     .......................................


    Thank you so much for reading the full post. Hope you like this post. If you have any questions about this post, then please let us know via the comments below and definitely share the post for help others know.

    Related Posts

    0 Comments: