রুশ বিপ্লবে লেনিনের ভূমিকা

রুশ বিপ্লবের প্রাণপুরুষ ছিলেন লেনিন| লেনিন এক সঙ্কটজনক মুহূর্তে রুশ বিপ্লবের হাল ধরেছিলেন এবং নিজের বলিষ্ঠ নেতৃত্ব দিয়ে যোগ্য অনুগামীদের সাহায্যে বিপ্লবকে সফল করেছিলেন| রাশিয়ার অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক ও আর্থিক পরিস্থিতিও বহুলাংশে মানসিক দিক থেকে বিপ্লবের অনুকূল ছিল| কিন্তু সেই পরিস্থিতিকে সঠিক সময় সঠিক পথে চালিত করেছিলেন লেনিন| 

ঐতিহাসিক ই. এইচ. কার বলেছেন যে, লেলিন ছিলেন মহতের মাঝে মহত্তর| কেবল পূর্বনির্ধারিত পরিস্থিতির সঙ্গে গা ভাসিয়ে তিনি মহত্বের উত্তীর্ণ হননি| তিনি ছিলেন একাধারে ইতিহাস সৃষ্টি এবং ইতিহাসের স্রষ্টা| তার নেতৃত্বে মানব ইতিহাস নতুন মোড় নিয়েছিল| পৃথিবীতে স্থাপিত হয়েছিল প্রথম সাম্যবাদী সরকার|

রুশ-বিপ্লবে-লেনিনের-ভূমিকা
লেনিন


1917 সালে এপ্রিল মাসে লেলিন যখন স্বদেশে প্রত্যাবর্তন করেন, তখন ছিল বিপ্লবে চরম মুহূর্ত| জার তন্ত্রের পতনের পর কেরেনস্কির নেতৃত্বে প্রতিষ্ঠিত অন্তবর্তী সরকারের ভিত্তি ছিল খুবই দুর্বল| এই অস্থায়ী সরকার দাঁড়িয়েছিল পরস্পর বিরোধী দুটি আদর্শ ও চিন্তার উপর| উদারনৈতিক বুর্জোয়া শ্রেণী ও নরমপন্থী আদর্শে বিশ্বাসী দল ও গোষ্ঠী চেয়েছিল, একটা গণতান্ত্রিক সংশোধনীয় সরকার গঠন করে সাংবিধানিক শাসনের ছত্রছায়ায় শাসনকার্য পরিচালনা করতে| কিন্তু পেট্রোগার্ডের শ্রমিক সোভিয়েত ও বিদ্রোহী সামরিক নেতারা ভিন্নমত ও আদর্শে বিশ্বাসী ছিলেন| তারা চেয়েছিলেন, যুদ্ধ মিটিয়ে দেশে শান্তি-শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠিত করে আর্থিক প্রগতি সুনিশ্চিত করতে| যুদ্ধে জার্মানীর হাতে বিপর্যয় রাশিয়ার সমস্যাকে জটিলতর করেছিল|এই অবস্থায় লেলিন তার বিখ্যাত "এপ্রিল থিসিস" প্রচার করেন|

লেলিন তার এপ্রিল থিসিস এ বলেন যে,
  1. বিপ্লব সফল করতে হলে পুঁজিবাদের সম্পূর্ণ বিলোপ করতে হবে|
  2. অস্থায়ী সরকারের প্রতি সমর্থন প্রত্যাহার করে সোভিয়েত গুলিকে শক্তিশালী করে তুলতে হবে এবং তার জন্য সোভিয়েত গুলির উপর কর্তৃত্ব নিরঙ্কুশ করতে হবে| 
  3. সংশোধনীয় প্রজাতন্ত্রের অবসান ঘটিয়ে জমি ও ব্যাংকের জাতীয়করণ করতে হবে| 
  4. সোভিয়েত গুলিকে উৎপাদন ও বন্টনের দায়িত্ব নিতে হবে| 
  5. সেই সঙ্গে দ্বিতীয় International - এর জায়গায় নতুন এক International  প্রতিষ্ঠার উপর জোর দেওয়া হবে|
লেনিনের এপ্রিল থিসিসের অনেকেরই মনঃপুত হয়নি| কিন্তু এর বক্তব্য ছিল সুস্পষ্ট| এর মূল কথা হলো, বুর্জোয়া বিপ্লবের পরিসমাপ্তি ঘটেছে, কাজেই এখনই সমাজতান্ত্রিক বিপ্লবের কাজ সম্পন্ন করতে হবে ও তার জন্য তিনি যে আওয়াজ তুলেছিলেন তা হল - "All power to the Soviets"

রুশ-বিপ্লবে-লেনিনের-ভূমিকা
সোভিয়েত ইউনিয়ন পতাকা


লেলিনের আরও একটি শ্লোগান হলো- শান্তি, রুটি ও জমি (peace, bread and land)| কিন্তু জুলাই মাসে বলশেভিকরা বৈপ্লবিক যে অভ্যুত্থানের চেষ্টা করেছিলেন, তা সফল হয়নি| লেনিন দেশ ছেড়ে ফিনল্যান্ড পালিয়ে গিয়েছিলেন| কিন্তু এই সময় জার্মানির হাতে অস্থায়ী সরকার পরাজিত হয় এবং রুশ সেনাবাহিনীতে ভাঙ্গন দেখা দেয়| লেনিন এই সুযোগের সদ্ব্যবহার করে বিপ্লবকে সফল করতে সচেষ্ট হন| কেরেনস্কি সরকারের দুর্বলতার সুযোগ গ্রহণ করে এবং শেষ পর্যন্ত লেনিন বল প্রয়োগের মাধ্যমে অন্তর্বর্তী সরকারকে উৎখাত করে রুশ বিপ্লব সম্পন্ন করেন|

লেনিনের ক্ষমতা দখল ছিল বিপ্লবের প্রথম পদক্ষেপ| ক্ষমতা দখলের পর তার প্রধান লক্ষ্য ছিল প্রতিবিপ্লবী শক্তিগুলিকে ধ্বংস করে একটি দেশে অর্থাৎ রাশিয়ার সমাজতন্ত্রী বিপ্লব সফল করা| এর জন্য প্রয়োজন ছিল শান্তিপূর্ণ পরিবেশ| এই নীতি অনুসরণ করেই লেনিন 1998 সালে জার্মানির সাথে অন্তত কঠোর শর্তে অপমানজনক "ব্রেস্ট লিটভস্কের চুক্তি" স্বাক্ষর করেন|এর পাশাপাশি তিনি নজর দেন ভূমি সংস্কারের কাজে| বিনা ক্ষতিপূরণে জমিদার ও চার্চের সমস্ত জমি ও ব্যক্তিগত সম্পত্তির জাতীয়করণ করা হয়| এরপর স্থানীয় সোভিয়েতের মাধ্যমে এইসব জমি কৃষকদের মধ্যে বন্টন করা হয়| জমিতে বেগার খাটানো ও জমি হস্তান্তর নিষিদ্ধ করা হয়| বিনা ক্ষতিপূরণে কলকারখানা গুলিও রাষ্ট্রীয়করণ করা হয়| এইভাবে রুশ জনগণ পায় মুক্তির আস্বাদ|

রুশ-বিপ্লবে-লেনিনের-ভূমিকা
কৃষক


বিদেশি আক্রমণ প্রতিহত ও প্রতিবিপ্লবী শক্তিগুলিকে দমন করার পরও কিন্তু বিপ্লবের কাজ ফুরিয়ে যায়নি| লেনিন মনে করেছিলেন যে, বিপ্লবকে পুরোপুরি উপলব্ধি করতে হলে অর্থনীতিকে শক্তিশালী করতে হবে| এই অবস্থায় অর্থনৈতিক সংকট মোচনের জন্য লেলিন তার নতুন অর্থনৈতিক পরিকল্পনা ঘোষণা করেন| এই পরিকল্পনা "নতুন অর্থনৈতিক নীতি"(New Economic policy) নামে পরিচিত| এই নীতি অনুযায়ী ছোট ছোট জমির মালিক ও ব্যবসায়ীর সম্পত্তি ফিরিয়ে দেওয়া হয়| কৃষকেরা তাদের খেতের ফসল বাজার দরে বিক্রি করার সুযোগ পায়| গ্রামের সমবায় প্রথাকে উৎসাহিত করা হয়| বিদেশ থেকে মূলধন এনে শিল্প প্রসারের নীতি গ্রহণ করা হয়| ছোট শিল্প মালিকদের সম্পত্তি ফিরিয়ে দেওয়া হয়| এই নতুন অর্থনৈতিক নীতির জন্য রাশিয়ার কৃষি ও শিল্পের দ্রুত উন্নতি ঘটে| জনগণ পায় মুক্তির আস্বাদ| রাশিয়াতে সাম্যবাদ প্রতিষ্ঠিত হয়|

1924 সালের প্রথম দিকেই রাশিয়াতে সাম্যবাদ প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল| তবে লেলিন রাশিয়াতে নতুন সাম্যবাদী ব্যবস্থার পরিপূর্ণতা দেখে যেতে পারেনি| কিন্তু তিনি জেনে গিয়েছিলেন যে, রুশ বিপ্লব এক নতুন আশার আলো দেখিয়েছিল রাশিয়ায় দরিদ্র পীড়িত মানুষকে| লেনিনের দরিদ্র মানসিকতা ছিলো বিপ্লবী সত্ত্বার অংশ| এই সত্ত্বার সাথে মিশ্রিত ছিল তীক্ষ্ণ বাস্তববোধ| উদ্দেশ্যের নিবিষ্ট অথবা স্থানীয় আদর্শবাদ এবং লেনিনের অকুণ্ঠ দেশপ্রেমই বিপ্লবকে তার কাঙ্খিত লক্ষ্যের দিকে নিয়েগেছিল|


তথ্যসূত্র

  1. Frank McDonough, "Conflict, Communism and Fascism".
  2. Ghosh Peu, "International Relations".

সম্পর্কিত বিষয়

  1. ইঙ্গ - ফরাসি তোষণ নীতি বলতে কী বোঝায় ? (আরো পড়ুন)
  2. কিউবার মিসাইল সংকট ১৯৬২ (আরো পড়ুন)
  3. দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ পরবর্তী সময়ে জার্মানির বিভাজন তথা বিশ্ব রাজনীতিতে তার প্রভাব  (আরো পড়ুন)
  4. ইতালিতে ফ্যাসিবাদের উত্থানের কারণ  (আরো পড়ুন)
সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ| আশাকরি আমাদের এই পোস্টটি আপনার ভালো লাগলো| আপনার যদি এই পোস্টটি সম্বন্ধে কোন প্রশ্ন থাকে, তাহলে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে জানাতে পারেন এবং অবশ্যই পোস্টটি শেয়ার করে অপরকে জানতে সাহায্য করুন|
                     .......................................

    Need Help..?

    Ask Questions - (click here)

    Mock Test

    Visit our Mock Test Episodes - (click here)

    Share this post with your friends

    Like and support our Facebook page
    Previous
    Next Post »