জাতীয়তাবাদ বলতে কি বুঝায়

অষ্টাদশ শতকের দ্বিতীয় ভাগ থেকে ইংল্যান্ড, ফ্রান্স, পর্তুগাল, হল্যান্ড এবং স্পেন প্রভৃতি ইউরোপীয় শক্তি এশিয়া ও আফ্রিকার বিভিন্ন দেশে উপনিবেশিক সাম্রাজ্য বিস্তার করতে থাকে| কালক্রমে তাদের শাসন ও শোষণ এইসব দেশে জাতীয়তাবাদের উন্মেষ ঘটায় এবং জনসাধারণ উপনিবেশিক শাসনের বন্ধন থেকে মুক্তির জন্য উন্মাদ হয়ে ওঠে|


জাতীয়তাবাদ-বলতে-কি-বুঝায়


জাতীয়তাবাদ বলতে আসলে কি বুঝায়, তা সঠিকভাবে ব্যাখ্যা করা খুব কঠিন কাজ| কারণ জাতীয়তাবাদ হল একটি অনুভূতি, যা কেবলমাত্র অনুভূতির দ্বারাই জানা সম্ভব| তার বাস্তব ব্যাখ্যা দেওয়া খুব কঠিন|

তাই জাতীয়তাবাদের ব্যাখ্যা দিতে গেলে কতগুলি উদাহরণ এর সাহায্য অবলম্বন করা খুব জরুরি| জার্মানি জাপানকে যুদ্ধে পরাজিত করে এবং শেষ পর্যন্ত ইংল্যান্ড, ফ্রান্স ও আমেরিকা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে জয়ী হলেও তাদের পক্ষে আর হৃত মর্যাদা পুনরুদ্ধার করা সম্ভব হয়নি| 

পরিশেষে আমরা এক কথায় বলতে পারি যে, কোনো কিছু আদায়ের জন্য সঙ্গবদ্ধ হয়ে আন্দোলন করার মধ্য দিয়েই জাতীয়তাবাদে উন্মেষ ঘটে|


সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ| আশাকরি আমাদের এই পোস্টটি আপনার ভালো লাগলো| আপনার যদি এই পোস্টটি সম্বন্ধে কোন প্রশ্ন থাকে, তাহলে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে জানাতে পারেন এবং অবশ্যই পোস্টটি শেয়ার করে অপরকে জানতে সাহায্য করুন|
                     .......................................

    Your Reaction ?

    Previous
    Next Post »