মুর্শিদকুলি খাঁর আমলে বাংলার ভূমি রাজস্ব ব্যবস্থা

মুর্শিদকুলি খাঁ যখন বাংলায় দেওয়ান নিযুক্ত হন, তখন বাংলা ছিল মুঘল সাম্রাজ্যের সবচেয়ে সমৃদ্ধ প্রদেশ| কিন্তু তার অর্থনীতি ছিল নানা ধরনের ত্রুটি-বিচ্যুতি ও বিশৃঙ্খলায় পরিপূর্ণ| তিনি প্রথমে বাংলার ভূমি রাজস্ব নতুন করে সাজানোর জন্য উদ্যোগ নেয়| 

মুর্শিদকুলি খাঁ সম্পর্কে যেসব উপাদান রয়েছে, সেগুলি হলো- সলিমউল্লাহর "তারিখ-ই-বঙ্গালাহ", গোলাম হোসেনের "রিয়াজ-উস-সালাতীন" এবং James Grant এর "Analysis of the Finance of Bengal" প্রভৃতি|

মুর্শিদকুলি-খাঁর-আমলে-বাংলার-ভূমি-রাজস্ব-ব্যবস্থা

                    মুঘল সাম্রাজ্যের মানচিত্র

                Author- Santosh.mbahrm
               Date- 26 September 2015
             Source- wikipedia (check here)
 License- GNU Free Documentation License

                     


স্যার যদুনাথ সরকার দেখিয়েছেন যে, রাজস্বের পরিমাণ বৃদ্ধিতে মুর্শিদকুলি কয়েকটি ব্যবস্থা গ্রহণ করেন, যথা-
  1. আমলাদের দখলে থাকা জায়গিরদারী জমিগুলি তিনি খালিসায় পরিণত করেন| খালিসার পরিমাণ বৃদ্ধি পাওয়ায় রাজস্বের আয় 10 লক্ষ্য 22 হাজার বৃদ্ধি পায়|
  2. খালিসায় জমি থেকে রাজস্ব আদায়ের দায়িত্ব নিলামের ভিত্তিতে ইজারাদারদের দেওয়া হয়| চুক্তির ভিত্তিতে একজন ইজারাদার নির্দিষ্ট ভূখন্ড থেকে রাজস্ব আদায়ের দায়িত্ব পায়|
  3. রাজস্ব দপ্তরে পুরনো কর্মচারীগণ দুর্নীতিগ্রস্ত হওয়ায় ও কেন্দ্রে রাজনৈতিক বিশৃঙ্খলার কারণে উত্তর ভারত থেকে রাজপুরুষদের বাংলায় আগমন বন্ধ হয়ে গেলে, মুর্শিদকুলি খাঁ উচ্চ রাজপদে স্থানীয় বাঙালিদের নিযুক্ত করেন, কারণ তারা ছিলো কর্মদক্ষ ও ফরাসি ভাষায় শিক্ষিত|

স্যার যদুনাথ সরকারের উপরিউক্ত বক্তব্যকে বিরোধিতা করে আব্দুল করিম দেখিয়েছেন যে, "সাবেকি জমিদার পরিবারগুলি ধ্বংস হয়ে যায়নি|বর্ধমান, বিষ্ণুপুর, নদিয়া ও বীরভূমের জমিদারদের অস্তিত্ব মুর্শিদকুলির হাতে ছিল"|


আবার নরেন্দ্র কৃষ্ণ দেখিয়েছেন যে, "মুর্শিদকুলির শাসনকালে জমিদারি ব্যবস্থা আরও শক্তিশালী হয় এবং সেই সময় বাংলায় 6টি ও বিহারে 3টি জমিদারি ছিল"| 

অন্যদিকে রত্ন রেখা রায় দেখিয়েছেন, "বাংলায় যে বিস্তীর্ণ অঞ্চল রাজস্ব ব্যবস্থার আওতায় আসেনি, মুর্শিদকুলি সেখানে বহু সংখ্যক পরগনাকে নিয়ে এক একটি গণ জমিদার গঠনে পক্ষপাতী ছিলেন"|

মুর্শিদকুলি-খাঁর-আমলে-বাংলার-ভূমি-রাজস্ব-ব্যবস্থা
কৃষক


সলিমউল্লাহর গ্রন্থ থেকে জানা যায় যে, মুর্শিদকুলি বাংলার জমিগুলি আবাদি, অনাবাদি এবং অনুর্বর, এই তিনটি ভাগে ভাগ করে কৃষকের উৎপন্ন ফসলের ভিত্তিতে জমি জরিপ করে রাজস্ব ধার্য করে| আব্দুল করিমের মতে, বিঘা প্রতি রাজস্বের পরিমাণ ছিল আট থেকে দশ আনা|

মুর্শিদকুলি অতিরিক্ত রাজস্ব আদায় বা বেআইনি রাজস্ব আদায়ে নিষিদ্ধ করলেও জমিদারদের উপর সামান্য হারে অন্যান্য কর ধার্য করেন| এই অতিরিক্ত কর জমিদারদের বোঝা কৃষকের ওপর চাপিয়ে দিলে কৃষকরা মোট 50 শতাংশ হারে রাজস্ব প্রদানের বাধ্য হয়|

মুর্শিদকুলি-খাঁর-আমলে-বাংলার-ভূমি-রাজস্ব-ব্যবস্থা


কঠোর শাস্তির ভয়ে প্রজারা কর দিয়ে দিতেন, এর ফলে ভূমির রাজস্বের হাড় বৃদ্ধি পায়| এই হিসাবে দেখা যায়, বাংলায় ভূমি রাজস্বের পরিমাণ ছিল 11728541 টাকা| কিন্তু মুর্শিদকুলির সংস্কারের পর 1722 খ্রিস্টাব্দে এর পরিমাণ বৃদ্ধি পায় 14109194 টাকা|

সলিমউল্লাহর গ্রন্থ থেকে জানা যায় যে, প্রতিবছর চৈত্র মাসের মধ্যে রাজস্ব আদায়ের কাজ শেষ করা হতো| প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের জন্য কৃষিকার্যের অবনতি দেখা গেলে রাজস্ব কিছুটা মুকুব করা হতো|

মুর্শিদকুলি খাঁর ভূমি রাজস্ব নীতি বাংলাদেশের অর্থনীতির উপর গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব ফেলেছিল| তিনি যে উন্নতি করেছিলেন, সে বিষয়ে কোনো সন্দেহ থাকতে পারে না|

স্যার যদুনাথ সরকারের মন্তব্য করেছেন, "মুর্শিদকুলির রাজস্বের জন্য রাষ্ট্রের আয় বেড়ে ছিল, কিন্তু স্বাভাবিকভাবে বাংলার অর্থনীতি বিশেষ উন্নতি হয়নি"|

পরিশেষে সলিমউল্লাহর মন্তব্য করেছেন যে, দিল্লি ও মুশিদাবাদে বিলাসিতা যত বৃদ্ধি পেয়েছিল, তা বাংলার সাধারণ মানুষ ততই অনাহারে মারা গিয়েছিল|



তথ্যসূত্র

  1. সতীশ চন্দ্র, "মধ্যযুগে ভারত"
  2. শেখর বন্দ্যোপাধ্যায়, "অষ্টাদশ শতকের মুঘল সংকট ও আধুনিক ইতিহাস চিন্তা"
  3. অনিরুদ্ধ রায়, "মুঘল সাম্রাজ্যের উত্থান-পতনের ইতিহাস"

    সম্পর্কিত বিষয়

    সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ| আশাকরি আমাদের এই পোস্টটি আপনার ভালো লাগলো| আপনার যদি এই পোস্টটি সম্বন্ধে কোন প্রশ্ন থাকে, তাহলে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে জানাতে পারেন এবং অবশ্যই পোস্টটি শেয়ার করে অপরকে জানতে সাহায্য করুন|

                  ......................................................

    নবীনতর পূর্বতন

    Subscribe our YouTube channel

    ইউটিউব চ্যানেল

    ইউটিউব চ্যানেলের সাবস্ক্রাইব করে আমাদের সঙ্গে থাকুন- Click Here

    মক টেস্ট

    ভিজিট করুন আমাদের মক টেস্ট গুলিতে- Click Here

    ফেসবুকের মাধ্যমে আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন

    Click Here

    আমাদের সঙ্গে ফেসবুক গ্রুপে থাকুন

    Click Here

    সাহায্যের প্রয়োজন ?

    প্রশ্ন করুন- Click Here

    ইমেইলের মাধ্যমে ইতিহাস সম্পর্কিত নতুন আপডেটগুলি পান(please check your Gmail box after subscribe)

    নতুন আপডেট গুলির জন্য নিজের ইমেইলের ঠিকানা লিখুন:

    Delivered by FeedBurner