বিশ্বায়নের ইতিবাচক ও নেতিবাচক দিক আলোচনা

অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে বিশ্বায়ন প্রক্রিয়ার প্রতিক্রিয়া বা পরিনাম প্রসঙ্গে ইতিবাচক ও নেতিবাচক উভয়বিধ বক্তব্যই বর্তমান| 


বিশ্বায়নের-ইতিবাচক-ও-নেতিবাচক-দিক-আলোচনা




প্রথমে বিরুদ্ধবাদীদের বিরূপ মতামত সহ উল্লেখ করা যেতে পারে-
  1. বিরুদ্ধবাদীদের অভিযোগ অনুযায়ী অর্থনৈতিক বিশ্বায়ন রাষ্ট্রের সামর্থ্য ও স্বাতন্ত্র্যকে বিপন্ন করে তুলে| রাষ্ট্রীয় আইনের অনুশাসন হীনবল হয়ে পড়ে| সংশ্লিষ্ট শক্তিশালী কর্পোরেশন সমূহের উপর জাতীয় বা গণতান্ত্রিক কোনরকম নিয়ন্ত্রণ কার্যকর হয় না| ব্যবসা-বাণিজ্যের উপর সরকারের নজরদারি থাকে না এবং জনসাধারণের কাছে কোন রকম দায়বদ্ধতা থাকে না|
  2. উদারনৈতিক রাজনীতির অর্থনীতিকে যারা বড় একটা সমর্থন করে না, তারা অর্থনৈতিক বিশ্বায়নের বিরুদ্ধে বলেন| সমালোচকরা ব্যাখ্যা করে যে, বিশ্বায়িত ব্যবসা-বাণিজ্যের কারণে কিছু কিছু দেশ বিশেষ বিশেষ দ্রব্য সামগ্রীর উৎপাদনের উপর একচেটিয়া নিয়ন্ত্রণ কায়েম করে| উদাহরণ হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ভেষজ সামগ্রী বা ওষুধ উৎপাদনের রাসায়নিক পণ্য সামগ্রী, প্রাণ প্রযুক্তি প্রভৃতি| বিপরীত ক্রমে অন্য কিছু দেশের উৎপাদিত পণ্য সামগ্রী বিশ্ব অর্থনীতির ক্ষেত্রে অপেক্ষাকৃত কম গুরুত্বপূর্ণ| 

অর্থনৈতিক বিশ্বায়নের সর্মথকরা এবিষয়ে ভিন্নমত পোষণ করেন| তারা অর্থনৈতিক বিশ্বায়নের সদর্থক দিকগুলি তুলে ধরেন| তাদের বক্তব্যের বিষয়গুলি সংক্ষেপে তুলে ধরা আবশ্যক-
  1. অর্থনৈতিক বিশ্বায়ন সম্ভূত নাটকীয় অর্থনৈতিক পরিবর্তনসমূহ বিশেষভাবে সমর্থনযোগ্য| কারণ সংশ্লিষ্ট পরিবর্তন সমূহের সুবাদে সমগ্র দুনিয়ার সম্পাদিত হবে|
  2. অর্থনৈতিক বিশ্বায়নের কল্যাণের দ্রব্য সামগ্রী ও শ্রমের জন্য অধিক সংখ্যক মানুষ বিশ্ববাজারে অংশগ্রহণ করতে পারে| অর্থনৈতিক বিশ্বায়নের সদর্থক প্রবণতার সুবাদে অধিকতর সমৃদ্ধির সৃষ্টি হয়| অসংখ্য মানুষ দারিদ্র সীমানার ঊর্ধ্বে ওঠার সুযোগ পায়|
  3. অর্থনৈতিক বিশ্বায়নের আরেকটি বড় ইতিবাচক দিক আছে| দ্রব্য সামগ্রী, শ্রম ও মূলধনের জন্য উন্মুক্ত বাজারের মাধ্যমে সম্পদ অধিকতর কার্যকরভাবে পৃথিবীব্যাপী সঞ্চারিত হয়| তার ফলে বিশ্বব্যাপী মানুষের জীবন যাত্রার মান আরো উন্নত হয়|
  4. অর্থনৈতিক বিশ্বায়ন অনেকাংশে উদারনৈতিক অর্থনৈতিক ব্যবস্থার আন্তর্জাতিকীকরণ হিসাবে প্রতিপন্ন হয়| এই প্রক্রিয়ার উন্মুক্ত বাজার ব্যবস্থা, দ্রব্য সামগ্রী এবং শ্রমের জন্য প্রতিযোগিতার উপর জোর দেওয়া হয়| 
পরিশেষে বিশ্ব সমরূপ হয়ে গড়ে উঠলে সমৃদ্ধি ও সহযোগিতা সমরূপে উন্মুক্ত হবে, এরকম আশা হয়তো অমূলক নয়|



তথ্যসূত্র

  1. Manfred B. Steger, "Globalization: A Very Short Introduction".
  2. BAYLIS ET AL, "The Globalization of World Politics 2nd".

সম্পর্কিত বিষয়

  1. বিশ্বায়নের অর্থনৈতিক নেটওয়ার্ক কীভাবে আজকাল কাজ করে (আরো পড়ুন)
  2. বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য (আরো পড়ুন)
  3. বহুজাতিক সংস্থার বৈশিষ্ট্য (আরো পড়ুন)
  4. GATT কি (আরো পড়ুন)
সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ| আশাকরি আমাদের এই পোস্টটি আপনার ভালো লাগলো| আপনার যদি এই পোস্টটি সম্বন্ধে কোন প্রশ্ন থাকে, তাহলে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে জানাতে পারেন এবং অবশ্যই পোস্টটি শেয়ার করে অপরকে জানতে সাহায্য করুন|
                     .......................................

    Your Reaction ?

    Previous
    Next Post »