ইংল্যান্ডের উপর নেপোলিয়নের মহাদেশীয় অবরোধ ব্যবস্থা

নেপোলিয়নের উত্থানের আগে থেকেই ইউরোপে ফ্রান্সের আধিপত্য প্রতিষ্ঠার বিরুদ্ধে ইংল্যান্ড সক্রিয় ভূমিকা গ্রহণ করেছিল| বিপ্লবী ফ্রান্সের বিরুদ্ধে ইংল্যান্ডই ছিল অন্যতম প্রধান শক্তি|

ডাইরেক্টরি শাসন কালে নেপোলিয়ন প্রথমে ইতালি অভিযানের সর্বাধিক নায়ক নিযুক্ত হন এবং পরে ইংল্যান্ডের সাথে যুদ্ধের দায়িত্বভার গ্রহণ করেন| এই সময় তিনি দীপ্ত কণ্ঠে ঘোষণা করেছিলেন ইংল্যান্ডই হলো ফ্রান্সের প্রধান শত্রু, যে করেই হোক এই শত্রুকে ধ্বংস করতেই হবে|

নেপোলিয়নের-মহাদেশীয়-অবরোধ-ব্যবস্থা
নেপোলিয়ন


নেপোলিয়ন ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হওয়ার পর এই শত্রুতা আরোও বৃদ্ধি পায়| তার শাসন ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হওয়ার পর ইংল্যান্ডের সঙ্গে যে সামরিক যুদ্ধ হয়েছিল সেখানেও নেপোলিয়ন ছিল মধ্যমণি| ইংরেজ আধিপত্য বিনষ্টের জন্যই নেপোলিয়ন মিশর অভিযানে যান| এরপর তিনি সরাসরি ইংল্যান্ড আক্রমণের পরিকল্পনা গ্রহণ করেন, কিন্তু তা ব্যর্থ হয়|

নৌ শক্তিতে ইংল্যান্ড ছিল প্রবল শক্তিধর এবং তার সামরিক আধিপত্য নেপোলিয়নের সমস্ত প্রচেষ্টাকে ব্যর্থ করে দেয়| ফলে ইংল্যান্ড ও নেপোলিয়নের মধ্যে চরম তিক্ততা এবং অবিশ্বাসের পর্যায়ে নেমে আসে|

1806 খ্রিস্টাব্দের মধ্যে নেপোলিয়ন ইউরোপের ভাগ্যবিধাতা হিসেবে উত্তীর্ণ হন| নেপোলিয়ন ইংল্যান্ডকে সরাসরি আক্রমণ করতে না পারায় নেপোলিয়ন মনে করেন যে, ইংল্যান্ডকে অপদস্থ করার একমাত্র উপায় হলো অর্থনৈতিক অবরোধ|

সেই সময়ই ইংল্যান্ড ছিল প্রধানতম বাণিজ্যিক ও উপনিবেশিক শক্তি| উপরন্ত আবার শিল্প বিপ্লব ইংল্যান্ডকে নতুন শক্তি জুগিয়ে ছিল| সুতরাং শিল্প এবং বাণিজ্য ইংল্যান্ডের প্রধান শক্তি| এই প্রাণ শক্তিকে আঘাত করতে পারলেই ইংল্যান্ডকে পরাভূত করা যাবে বলে নেপোলিয়ন মনে করেন| তা সম্ভব হবে যদি ইউরোপীয় ভূখণ্ডে ইংরেজ বাণিজ্য বন্ধ করা যায়|

নেপোলিয়নের-মহাদেশীয়-অবরোধ-ব্যবস্থা
নেপোলিয়নের সাম্রাজ্য


ইউরোপের উত্তর উপকূল ভাগের মধ্য দিয়ে ইংল্যান্ডের ব্যবসা-বাণিজ্য চলত| নেপোলিয়ন মনে করেন যে, এই পথ বন্ধ করে দিলে ইংল্যান্ড যে অর্থনৈতিক মন্দা দেখা দেবে, তার প্রতিক্রিয়া ইংল্যান্ড সহ্য করতে পারবে না| এর ফলে ইংল্যান্ড আত্মসমর্পণ করতে বাধ্য হবে|

নেপোলিয়নের মতে, ইংল্যান্ড ব্যবসা-বাণিজ্যের উপর নির্ভরশীল, স্বভাবতই এই জাতিকে তিনি হাতে না মেরে ভাতে মারার ব্যবস্থা করেন| এর ফলে তিনি যে ব্যবস্থা গ্রহণ করেন, তা ইউরোপীয় ইতিহাসে "মহাদেশীয় অবরোধ ব্যবস্থা" নামে পরিচিত| এর উদ্দেশ্য ছিল ইউরোপের বিভিন্ন দেশে ও ইংল্যান্ডের মধ্যে একদিকে ব্যবসা-বাণিজ্য বন্ধ করা, অপরদিকে ইউরোপীয় জনসাধরণ যাতে ইংল্যান্ডের কোন পণ্য কিনতে না পারে সেদিকে নজর রাখা| ইংল্যান্ডের পন্য বর্জন বা বয়কট এই ব্যবস্থার অন্যতম দিক ছিল|

নেপোলিয়নের-মহাদেশীয়-অবরোধ-ব্যবস্থা
ইউরোপের মানচিত্র


নেপোলিয়ন মহাদেশীয় অবরোধ ব্যবস্থা সম্পর্কে বিভিন্ন নীতি জারি করলেও জনসাধারণ তার চক্ষুর অন্তরালে ইংল্যান্ডের বিভিন্ন জিনিস ক্রয় করতে থাকে| কারণ ইংল্যান্ডের এমন অনেক পণ্য ছিল যেগুলির চাহিদা সমগ্র ইউরোপে বজায় ছিল| ফলে জনসাধারণ তাদের প্রয়োজন মেটানোর জন্য নেপোলিয়নের মহাদেশীয় অবরোধ ব্যবস্থাকে কোন মান্যতাই দেননি|

নেপোলিয়নের মহাদেশীয় অবরোধ ব্যবস্থার জন্য সমগ্র ইউরোপের এক বিরাট অর্থনৈতিক মন্দার সৃষ্টি হয়|সাধারণ মানুষ এক মহা বিপর্যয়ের সম্মুখে উপস্থিত হয়| মানুষের প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি দুর্লভ এবং দুর্মূল্য হওয়ার ফলে নেপোলিয়নের শাসন এবং বিভিন্ন নীতির প্রতি জনসাধারণের ঘৃণার সৃষ্টি হয়| পর্তুগাল আক্রমণ, পোপের সঙ্গে বিরোধ এবং সেখানে হস্তক্ষেপ এবং রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধ- এগুলি সবই মহাদেশীয় অবরোধ ব্যবস্থার জন্য ঘটেছিল|

সুতরাং বলা যায় যে, জাতীয় চেতনা নেপোলিয়নের পতনের জন্য প্রধান কারণ ছিল, সেটি অবশ্যই মহাদেশীয় অবরোধ ব্যবস্থা ছাড়া আর কিছু হতে পারে না|


তথ্যসূত্র

  1. অধ্যাপক গোপালকৃষ্ণ পাহাড়ি, "ইউরোপের ইতিবৃত্ত"
  2. Adam Zamoyski, "Rites of Peace: The Fall of Napoleon and the Congress of Vienna".
  3. George Holmes, "The Oxford History of Medieval Europe".

সম্পর্কিত বিষয়

সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ| আশাকরি আমাদের এই পোস্টটি আপনার ভালো লাগলো| আপনার যদি এই পোস্টটি সম্বন্ধে কোন প্রশ্ন থাকে, তাহলে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে জানাতে পারেন এবং অবশ্যই পোস্টটি শেয়ার করে অপরকে জানতে সাহায্য করুন|
                     .......................................

    নবীনতর পূর্বতন
    👉 Join Our Whatsapp Group- Click here 🙋‍♂️
    
        
      
      
        👉 Join our Facebook Group- Click here 🙋‍♂️
      
    
    
      
    
       
      
      
        👉 Like our Facebook Page- Click here 🙋‍♂️
    
    
        👉 অনলাইনে মক টেস্ট দিন- Click here 📝📖 
    
    
    👉 আজকের দিনের ইতিহাস - Click here 🌐 🙋‍♂️
    
    
        
      
               
    
     Join Telegram... Family Members
      
         
                    
                    
    
    
    
    
    
    
    

    টেলিগ্রামে যোগ দিন ... পরিবারের সদস্য

    
    
    
    
    
    
    
    
    
    

    নীচের ভিডিওটি ক্লিক করে জেনে নিন আমাদের ওয়েবসাইটটির ইতিহাস সম্পর্কিত পরিসেবাগুলি

    
    

    পরিক্ষা দেন

    ভিজিট করুন আমাদের মক টেস্ট গুলিতে এবং নিজেকে সরকারি চাকরির জন্য প্রস্তুত করুন- Click Here

    আমাদের প্রয়োজনীয় পরিসেবা ?

    Click Here