আধুনিক ভারতের ইতিহাসের বিষয় হিসেবে কৃষক কেন এবং কিভাবে গুরুত্বপূর্ণ

ভারতীয় কৃষকরা ভারত ইতিহাসে সামাজিক, অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক ও সবদিক থেকেই প্রাথমিক পর্যায়ে অবহেলিত হয়েছে, কিন্তু পৃথিবীর অন্যত্র কৃষক সম্পর্কে পশ্চিমী মহলে এই নির্লিপ্ততা দেখা যায় না|

1524-25 খ্রিস্টাব্দে জার্মানির কৃষক যুদ্ধের সম্পর্কেও বহু প্রবন্ধ রচিত হয়েছে| পরবর্তীতে কৃষক আন্দোলন সম্পর্কে সচেতনতা পরিলক্ষিত হয়েছে রাশিয়া, চীন, যুগোস্লাভিয়া, ভিয়েতনাম, কিউবা প্রভৃতি দেশের ক্ষেত্রেও| তা সত্ত্বেও বুদ্ধিজীবী মহলে ভারতীয় কৃষকরা প্রায় অচ্ছুত হয়েছিল|

ভারতের-ইতিহাসের-বিষয়-হিসেবে-কৃষক
কৃষক


ভারতীয় কৃষকদের সম্পর্কে বুদ্ধিজীবী মহলে এই নির্লিপ্ততা কিছু কারণ পরবর্তীকালে ভাবনা-চিন্তায় ধরা পড়েছে| এর কারণ হিসেবে প্রথম দিকে বলা হতো যে, ভারতীয় কৃষকরা ছিল নৈতিক বিষয়ে উদাসীন ও হতাশাগ্রস্ত ফলে তাদের উপর ঐতিহাসিকদের দৃষ্টি বিশেষ পড়েনি| এছাড়া ভারতীয় কৃষকদের সম্পর্কে বুদ্ধিজীবী মহলে নির্লিপ্ততার কারণ সম্পর্কে আরও বলা হয়েছে যে, ভারতীয় কৃষকরা ছিল অতিমাত্রায় অদৃষ্টবাদী এবং ভয়ঙ্কর রকম কুসংস্কারাচ্ছন্ন|

তবে এই কারণগুলিকে অবশ্য আধুনিক ঐতিহাসিকরা সম্পূর্ণ রূপে গ্রহণ করেননি| বস্তুত প্রাথমিক পর্যায়ে কারণ নির্দেশিত ধারণার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন এ. আর. দেশাই|

পরবর্তীতে এ. আর. দেশাই সম্পাদিত "Peasant Struggles in India" গ্রন্থে অধ্যাপক ক্যাথলিন গফ ঐতিহাসিক প্রমাণ সহ দেখিয়েছেন যে, ভারতীয় কৃষকরা মোটেই সামাজিক, অর্থনৈতিক, ও রাজনৈতিক বিষয়ে উদাসীন ছিল না|

অধ্যাপক রণজিৎ গুহ বিখ্যাত "elementary aspects of peasant insurgency in colonial india" গ্রন্থেও একই মত ধ্বনিত হয়েছে| এদের মতে ব্রিটিশ শাসন ও সামাজিক, অর্থনৈতিক আগ্রাসী বিরুদ্ধে ভারতীয় কৃষক মাঝে মাঝেই কখনো শান্তিপূর্ণভাবে, আবার কখনো অস্ত্র হাতে আন্দোলনে সামিল হয়েছে|

ভারতের-ইতিহাসের-বিষয়-হিসেবে-কৃষক
কৃষি জমি


ক্যাথলিন গফ ভারতীয় আন্দোলন সম্পর্কে বিশ্লেষণাত্মক আলোচনা করে এর 5 টি ধাঁচ নির্ধারণ করলেও মার্কসবাদীরাই প্রথম কৃষক সম্পর্কে আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন| এর পিছনে কারণ ছিল-
  1. প্রথমত, কৃষক সম্পর্কে কাল মার্কস এর ধারণা সংশোধন করেছিল লেনিন ও মাও-সে-তুং| ফলে বিপ্লবের ক্ষেত্রে কৃষক অভ্যুত্থানের ধারণা প্রতিষ্ঠিত হওয়ায় মার্কসবাদীরা কৃষক সম্পর্কে আগ্রহী হয়ে ওঠে|
  2. দ্বিতীয়ত, পৃথিবীর সর্বত্র কৃষক আন্দোলন নিয়ে গবেষণা শুরু হলে মার্কসবাদী ঐতিহাসিকরা ভারত সম্পর্কে আগ্রহী হয়ে ওঠেন| 1995 খ্রিস্টাব্দে ক্যাথলিন গফের প্রবন্ধ এবং 1966 খ্রিস্টাব্দে বারিংটন মুর জুনিয়র চীনের কৃষকদের সাথে ভারতীয় কৃষকদের তুলনা ভারতীয় ও বিদেশী পন্ডিত মহলে উৎসাহের সৃষ্টি করে| এর পরেই ভারতীয় কৃষকদের নিয়ে গবেষণার জোয়ার এসে যায়|

কিভাবে ভারতীয় ইতিহাসে ভারতীয় কৃষক গুরুত্বপূর্ণ

ভারতীয় কৃষকের আলোচনার বিষয়বস্তু হয়ে উঠার দিকটিও ইতিহাস দর্শনের ক্ষেত্রে যথেষ্ট আকর্ষনীয়| বস্তুত কয়েকটি দিক থেকে এই বিষয়টাকে ব্যাখ্যা করা যায়- 
  1. প্রথমত, স্বাধীন ভারতে সমস্যা দেখা দিয়েছিল যে, ইংরেজ আমলে কৃষকরা যেভাবে শোষিত হয়েছে তার পরবর্তী ব্যবস্থা কিভাবে আনা যায়| এই অবস্থায় ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপটে কৃষকদের সম্পর্কে আলোচনার প্রয়োজনীয় হয়ে উঠে|
  2. দ্বিতীয়ত, 1860 খ্রিস্টাব্দে নীল বিদ্রোহ প্রমাণ করেছিল যে, বাণিজ্যিক ফসল উৎপাদনের জন্য ইংরেজ মালিকরা কৃষকদের উপর নিদারুণ অত্যাচার চালিয়েছিল| পরবর্তীতে পাট, চা, তুলো, আখ ইত্যাদি ক্ষেত্রেও ইংরেজরা চুক্তিবদ্ধ কৃষি শ্রমিক নিয়োগ করে এদের উপর অত্যাচার করেছে| এর পাশাপাশি কাল মার্কস তার "দাস ক্যাপিটাল" গ্রন্থের প্রথম খণ্ডে বিশ্ব প্রেক্ষাপটে এই পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা করলে ভারতীয় বুদ্ধিজীবী মহলেও ভারতীয় কৃষকদের নিয়ে আলোচনার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেন|
  3. তৃতীয়ত, 1875 খ্রিষ্টাব্দের দাক্ষিণাত্যের কৃষক বিদ্রোহ রায়তওয়ারী অঞ্চলে মহাজন ও ইংরেজদের শোষণের চিত্র পরিষ্কার করে দেয়| মহাজন ও ইংরেজ বণিকরা শোষণ করে কিভাবে ধনী হচ্ছে, এই বিষয়টি কার্ল মার্কসের "primitive accumulation" তত্ত্বের আলোকে ভারত ইতিহাসে যাচাই করার প্রয়োজনীয়তা পন্ডিত মহলে অনুভূত হয়|
  4. চতুর্থত, 1855-56 খ্রিস্টাব্দে সাঁওতাল বিদ্রোহ, 1870 এর পাবনার কৃষক বিদ্রোহ বুদ্ধিজীবী মহলকে জমিদার ও রাতের সম্পর্ক নিয়ে আলোচনায় উদ্বুদ্ধ করে| অধ্যাপক কালীকিঙ্কর দত্ত, বিনয় ভূষণ চৌধুরী প্রমূখ এই আলোচনায় উৎসাহী হয়ে উঠে| এই ভাবেই ভারতীয় কৃষক ক্রমশ পন্ডিত মহলের আলোচনার মানচিত্রে উঠে আসে আসে|
ইদানিং বুদ্ধিজীবী মহল কৃষকদের নিয়ে আলোচনায় আগ্রহী হলেও একথা ঠিক যে, প্রথমদিকে মার্কসবাদীরাই একাজে অগ্রসর হয়েছিলেন| তবে অনেক ক্ষেত্রেই তাদের আলোচনা ছিল বিক্ষিপ্ত| পরবর্তীতে শাহিদ আমিন, গৌতম ভদ্র প্রমুখ পন্ডিতের আগমন নিঃসন্দেহে ভারত ইতিহাসে ভারতীয় কৃষকের অবস্থানকে সুসংগত রূপ দান করেছে|


তথ্যসূত্র

  1. A. R. Desai, "Peasant Struggles in India".
  2. Sho Kuwajima, "peasants and peasant leaders in contemporary history".

সম্পর্কিত বিষয়

  1. কৃষক কাকে বলে (আরো পড়ুন)
  2. ভারতের শ্রমিক শ্রেণীর আন্দোলন এর সংক্ষিপ্ত ইতিহাস  (আরো পড়ুন)
  3. ব্রিটিশ সাম্রাজ্যবাদী ভাবাদর্শ (আরো পড়ুন)
সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ| আশাকরি আমাদের এই পোস্টটি আপনার ভালো লাগলো| আপনার যদি এই পোস্টটি সম্বন্ধে কোন প্রশ্ন থাকে, তাহলে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে জানাতে পারেন এবং অবশ্যই পোস্টটি শেয়ার করে অপরকে জানতে সাহায্য করুন|
                     .......................................

    Note:- Please share your comment for this post :

    :

    --Click here:--

    .

    Share this post with your friends

    please like the FB page and support us

    Previous
    Next Post »

    Top popular posts