চিশতী সম্প্রদায় কি

ভারতে আসার আগেই সুফিদের মধ্যে অসংখ্য সিলসিলা বা সম্প্রদায় গড়ে উঠেছিল। ঐতিহাসিক আবুল ফজল ভারতবর্ষের 14 টি সম্প্রদায় বা সিলসিলাহের কথা বলেছেন। এর মধ্যে চিশতী ও সুরাবর্দী সিলসিলাহ যথেষ্ট জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিল। উভয় সম্প্রদায়ই শরীয়তী আইন মেনে চলতেন। 

চিশতী-সম্প্রদায়-কি



ভারতের চিশতি সম্প্রদায়ের প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন খাজা মইনুদ্দিন চিশতী। তিনি মোহাম্মদ ঘুরীর আক্রমণের সময় মধ্য এশিয়ার শিয়াস্তান থেকে ভারতে আসেন এবং আজমিরের স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন। তার সহজ-সরল জীবনযাত্রা ও সহনশীল নীতির জন্য বহু রাজপুত তার অনুরক্ত হয়েছিল। খাজা মইনুদ্দিন চিশতী শিশুদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিলেন কুতুবউদ্দিন বক্তিয়ার কার্ফি।

চিশতি সম্প্রদায়ের সর্বাধিক বিখ্যাত ছিলেন শেখ নিজামউদ্দিন আওলিয়া ও তার শিষ্য শেখ নাসিরউদ্দিন চিরাগ। সমগ্রহ উত্তর ভারতে এদের প্রভাব ছড়িয়ে পড়েছিল। আওলিয়ার ব্যক্তিত্ত্ব ও ধর্মভাবে আকৃষ্ট হয়ে হিন্দু-মুসলমান নির্বিশেষে বহু মানুষ তার শিষ্যত্ব গ্রহণ করেছিল। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিলেন আমির খসরু, জিয়াউদ্দিন বরনী।

চিশতি সম্প্রদায়ের সুফী সন্তরা ধর্মীয় ভেদাভেদ মানতেন না। তারা সাধারণ জীবন-যাপন, দরিদ্র, নম্রতা, ঈশ্বরের প্রতি অনুরক্ত থাকার প্রভৃতির ওপর জোর দিতেন। চিশতি সম্প্রদায়ের সুফী সন্তদের সহজ-সরল জীবনযাপন, মানবতাবাদ, সাম্যবাদী ধারণা, নিম্নবর্ণের হিন্দু ও অস্পৃশ্যতাবাদের জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিলেন।




তথ্যসূত্র

  1. অধ্যাপক গোপালকৃষ্ণ পাহাড়ী, "মধ্যকালীন ভারত"
  2. সতীশ চন্দ্র, "মধ্যযুগে ভারত"
  3. Poonam Dalal Dahiya, "Ancient and Medieval India"
  4. Upinder Singh, "A History of Ancient and Early Medieval India: From the Stone Age to the 12th Century"

    সম্পর্কিত বিষয়

    সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ| আশাকরি আমাদের এই পোস্টটি আপনার ভালো লাগলো| আপনার যদি এই পোস্টটি সম্বন্ধে কোন প্রশ্ন থাকে, তাহলে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে জানাতে পারেন এবং অবশ্যই পোস্টটি শেয়ার করে অপরকে জানতে সাহায্য করুন|
                  ......................................................


    Previous Post Next Post

    মক টেস্ট

    ভিজিট করুন আমাদের মক টেস্ট গুলিতে- Click Here

    সাহায্যের প্রয়োজন ?

    প্রশ্ন করুন- Click Here

    ফেসবুকের মাধ্যমে আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন

    our Facebook page- Click Here

    Our Facebook Group- Click Here

    ইমেইলের মাধ্যমে ইতিহাস সম্পর্কিত নতুন আপডেটগুলি পান(please check your Gmail box after subscribe)

    নতুন আপডেট গুলির জন্য নিজের ইমেইলের ঠিকানা লিখুন:

    Delivered by FeedBurner