বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য

আন্তর্জাতিক বাণিজ্য, বাণিজ্য সংক্রান্ত লেনদেন, অর্থ লগ্নি প্রভৃতি বিষয়গুলিকে আন্তর্জাতিক নিয়ম-শৃঙ্খলার মধ্যে আনার উদ্দেশ্যে একটি বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা গড়ে তোলার উদ্যোগ বিংশ শতকের আটের দশকের মাঝামাঝি শুরু হয়| তার বাস্তব রূপায়ণ ঘটে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার(WTO) মাধ্যমে| 1995 সালের এটি প্রতিষ্ঠা হয় এবং  সুইজারল্যান্ডের  জেনেভা শহরে এর সদর দপ্তর প্রতিষ্ঠিত হয়|

বিশ্ব-বাণিজ্য-সংস্থার লক্ষ্য-ও-উদ্দেশ্য





লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য

  1. এই সংগঠনের মাধ্যমে বিশ্বের দেশগুলির মধ্যে অবাধ বাণিজ্য নীতি প্রবর্তন করা হয়, যাতে সমস্ত দেশের মধ্যে পণ্য চলাচলের ব্যাপারে কোনরকম প্রতিবন্ধকতার আবির্ভাব ঘটতে না পারে|
  2. রক্ষণবাদ ও অবাধ বাণিজ্য নীতির মধ্যে বিরোধের অবসান ঘটিয়ে সকল দেশের বৈদেশিক বিকাশকে সুনিশ্চিত করা হয়|
  3. উন্নয়ন ও উৎপাদনের মধ্যে সামঞ্জস্য রেখে উৎপাদিত দ্রব্যগুলিকে সুষ্ঠুভাবে বন্টন করা ও হস্তান্তর করা এই সংস্থার কাজ| 
  4. WTO কে বিশ্ব বাণিজ্য, লগ্নি এবং প্রযুক্তি হস্তান্তরের দায়িত্ব দিলে উন্নয়নশীল দেশগুলির অতি সহজেই প্রয়োজনীয় দ্রব্য সংগ্রহ করে উন্নত মানের লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারে|
  5. বাণিজ্যিক উন্নয়ন, উন্নত মানে উপাদান, যোগাযোগ প্রকৃতিকে একই ছাতার তলায় আনার জন্য এই সংগঠন গড়ে তোলা হয়|


তথ্যসূত্র

  1. Manfred B. Steger, "Globalization: A Very Short Introduction".
  2. BAYLIS ET AL, "The Globalization of World Politics 2nd".

সম্পর্কিত বিষয়

  1. বিশ্বায়নের অর্থনৈতিক নেটওয়ার্ক কীভাবে আজকাল কাজ করে (আরো পড়ুন)
  2. বহুজাতিক সংস্থার বৈশিষ্ট্য (আরো পড়ুন)
  3. GATT কি (আরো পড়ুন)
সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ| আশাকরি আমাদের এই পোস্টটি আপনার ভালো লাগলো| আপনার যদি এই পোস্টটি সম্বন্ধে কোন প্রশ্ন থাকে, তাহলে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে জানাতে পারেন এবং অবশ্যই পোস্টটি শেয়ার করে অপরকে জানতে সাহায্য করুন|
                     .......................................

    Your Reaction ?

    Previous
    Next Post »