বিশ্বায়ন বলতে কি বুঝায়

বর্তমান বিশ্ব রাজনীতিতে বিশ্বায়ন একটি বহু ব্যবহৃত ধারণা| বিশ্বায়ন ধারণাটির প্রবর্তক অধ্যাপক রোলান্ড রবার্টসন প্রথম একে আনুষ্ঠানিক রূপ দেন ও সংজ্ঞায়িত করেন|

সাধারণভাবে বলা যায়, বিশ্বের এক প্রান্তের মানুষের সঙ্গে অন্য প্রান্তের মানুষের যোগাযোগ ও পারিপার্শ্বিক প্রভাব ও প্রতিক্রিয়াই হলো বিশ্বায়ন| 

এককথায় সমগ্র পৃথিবীকে পারস্পরিক সম্পর্কের হাতের মুঠোয় নিয়ে আসাই বিশ্বায়ন| এই বিশ্বায়নের প্রভাবে দেশের সীমান্ত, রাষ্ট্রীয় বৈশিষ্ট্য, চিরাচরিত ঐতিহ্য প্রভৃতি সবই গুরুত্বহীন হয়ে পড়ে|

বিশ্বায়ন


অধ্যাপক রোলান্ড রবার্টসনের মতে, একটি ধারণা হিসাবে বিশ্বায়ন একদিকে যেমন বিশ্বের সংকুচিকরণ বোঝায়, অপরদিকে তেমনি বিশ্বের একত্রীকরণের ধারণাও সৃজন করে| অর্থাৎ বিশ্বায়ন বিশ্বের বিভিন্ন রাষ্ট্রগুলির মধ্যে বাণিজ্য, সামরিক ও সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে ক্রমবর্ধমান নির্ভরশীলতা প্রতি আলোকপাত করে| তবে বিশ্বায়ন ধারণাটির সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো "এক বিশ্ব"- এই ধারণার সৃজন|

অ্যান্থনি জিদদেন্স(Anthony Giddens) বিশ্বায়নের সংজ্ঞা দিতে গিয়ে বলেছেন, বিশ্বায়ন হল সারা বিশ্বব্যাপী সামাজিক সম্পর্কগুলির এতটাই নিগড়ীকরণ, যার ফলে কিনা প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলির স্থানীয় জীবনযাত্রার শত শত মাইল দূরে ঘটে যাওয়া ঘটনাগুলির দ্বারা প্রভাবিত হচ্ছে|

বিশিষ্ট সমাজবিজ্ঞানী অমিয়কুমার বাগচী বিশ্বায়নের সংজ্ঞা দিতে গিয়ে বলেছেন- বিশ্বায়ন হলো একটি জগৎ ব্যাপি প্রক্রিয়া| বিশ্বায়নের এই প্রক্রিয়ার সাহায্যে রাষ্ট্রকেন্দ্রিক সংস্থা বা এজেন্সি বিশ্বজুড়ে নিজেদের মধ্যে নানা প্রকার সম্পর্ক গড়ে তুলে| বিশ্বায়নের সংজ্ঞা অর্থনীতি, বাণিজ্য, শিল্প, যোগাযোগ, পরিবহন, আমদানি-রপ্তানি, রাজনীতি, সাংস্কৃতিক সকল বিষয় জড়িত| তবে বিশ্বায়ন প্রধানত "অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের বিশ্বায়ন"| যেখানে পুঁজি, পণ্য ও বাজার একই সূত্রে গ্রথিত|

অমিয়কুমার বাগচীর মতে, বিশ্বায়ন কতগুলি আর্থিক নীতির সমাহার| এই বিশ্বায়নের প্রক্রিয়াটি হলো আসলে বিশ্ব পুঁজিবাদকে আরো সম্প্রসারিত করার একটি প্রক্রিয়া| অনেকে মনে করেন, বিশ্বায়ন হলো "নয়া উপনিবেশবাদ"| তৃতীয় বিশ্বের কাছে নয়া উপনিবেশবাদের একটি কৌশল হিসেবে কাজ করেছে|



তৃতীয় বিশ্বের উপর বিশ্বায়নের প্রভাব

বিশ্বায়নের প্রবক্তারা বিশ্বায়নকে সংহতি-সাধন ও বিশ্বের সংযুক্তি সাধনের এক স্বাভাবিক ও মহান প্রক্রিয়া হিসাবে চিহ্নিত করলেও এবং এর ফলে নয়া সাম্রাজ্যবাদী দেশগুলোর শ্রীবৃদ্ধি ঘটলেও, তৃতীয় বিশ্বের দেশ গুলির উপর কিন্তু বিশ্বায়নের নেতিবাচক প্রক্রিয়া বিশেষভাবে লক্ষ্য করা যায়|

বিশ্বায়নের যুগে আন্তর্জাতিক অর্থভাণ্ডার, বিশ্ব ব্যাংক ও বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা- এই তিনটি সংস্থার মাধ্যমে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সহ বিশ্বায়নের প্রবক্তারা বিশ্বব্যাপী পুঁজির লগ্নির সম্প্রসারণের মাধ্যমে তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলিতে অর্থনৈতিক দিক থেকে শোষণ করার কাজে আত্মনিয়োগ করেছে| এই সংস্থা গুলি তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলিতে পূর্ব শর্ত হিসেবে কাঠামোগত সংস্কার করতে বাধ্য করেছে|

ঋণগ্রহণকারী অনুন্নত ও উন্নয়নশীল দেশগুলির বাজার উন্মুক্ত করা, তাদের অর্থনীতিকে বিশ্ববাজারের লীলাখেলার উপর ছেড়ে দেওয়া, বহুজাতিক পুঁজির অবাধ যাতায়াতের পথ মসৃণ করা, অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে সরকারের হস্তক্ষেপ বন্ধ করা প্রভৃতি হল এরূপ সংস্থাগুলির অবিচ্ছেদ্য অংশ| এই কাঠামোগত সংস্কারের নামে বহুজাতিক সংস্থাগুলিকে কার্যত অবাত শোষনের অধিকার দেওয়া হয়েছে|


অর্থনৈতিক 

তৃতীয় বিশ্বের উপর বিশ্বায়নের প্রভাব প্রসঙ্গে মন্তব্য করতে গিয়ে নোয়াম চমস্কি বলেছেন যে, সমগ্র বিশ্বে বিশ্বায়নের যুগে দেশের অভ্যন্তরে ও বাইরে অসাম্য উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে|

সর্বোপরি IMF, বিশ্ব ব্যাংক প্রভৃতি আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর চাপের কাছে নতিস্বীকার করে তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলো সরকারি ক্ষেত্রগুলি বেসরকারিকরণ, পরিষেবা মূলক কাজে অর্থ ব্যয় হ্রাস,  নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদির উপর থেকে সরকারি ভর্তুকি প্রত্যাহার, শিক্ষা ও স্বাস্থ্যের খাতে ব্যয় বরাদ্দ প্রভৃতি জনস্বার্থ বিরোধী কর্মসূচি গ্রহণ করতে বাধ্য হচ্ছে|





রাজনৈতিক 

অর্থনৈতিক ক্ষেত্রের মতো রাজনৈতিক ক্ষেত্রেও বিশ্বায়নের বিরূপ প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা যায়| জাতিরাষ্ট্রের অবসানের নামে বিশ্বায়ন কার্যত রাষ্ট্রের জনকল্যাণকর ভূমিকাকেই অস্বীকার করেছে| আবার গণতন্ত্রের মার্কিন ভাষ্যকে গ্রহণযোগ্য করে তোলার জন্য অনেক জাতি রাষ্ট্রের রাজনৈতিক সার্বভৌমত্ব বিপন্ন হয়ে পড়েছে|

উদাহরণ হিসেবে সাম্প্রতিককালে জর্জ বুশ ও টনি ব্লেয়ার কর্তৃক ইরাক আক্রমণ এবং সেখানকার রাষ্ট্রপ্রধান সাদ্দাম হোসেনকে অপসারণ ও হত্যা করার কথা বলা যেতে পারে|


সাংস্কৃতিক 

বিশ্বায়নের ফলে তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলিতে নিজস্ব সংস্কৃতি বিপন্ন হয়ে পড়েছে| উন্নত তথ্য প্রযুক্তির পরিকাঠামো ও গণমাধ্যমের উপর বহুজাতিক সংস্থাগুলির প্রতিষ্ঠিত হবার ফলে পশ্চিমী ভোগবাদী সংস্কৃতি আজ ব্যাপকভাবে প্রসার লাভ করেছে|  যেমন অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পেয়েছে, অন্যদিকে তেমনি টিভি, সিনেমার দৌলতে যৌনতা ও মাফিয়াতন্ত্রের পাশাপাশি হিংস্রতাকেও মানব সমাজের স্বাভাবিক অঙ্গ হিসেবে তুলে ধরা হচ্ছে| তাছাড়া বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে ফ্যাশন শো-এর প্রদর্শনী ও বিজ্ঞাপনে বিজ্ঞাপনের কাজে নারীর সৌন্দর্যকে ব্যবহার করার মাধ্যমে বিকৃত সংস্কৃতিকে প্রকৃত সংস্কৃতি হিসেবে তুলে ধরার একটা অন্তহীন প্রয়াস লক্ষ্য করা হয়েছে|

বিশ্বায়নের ফলে তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলিতে বহুজাতিক সংস্থাগুলোর যে সমস্ত শিল্প গড়ে উঠেছে, সেগুলির মধ্যে বেশ কয়েকটি পরিবেশ দূষণকারী হিসেবে চিহ্নিত করা যায়| বিশ্বায়নের অশুভ প্রভাব থেকে তৃতীয় বিশ্বের কৃষি ক্ষেত্রটিও রেহাই পায়নি|

বিশ্বায়ন
কৃষি জমি

বিশ্বায়ন
চাষী


বিশ্বায়নের সাথে তাল মিলাতে গিয়ে উৎপাদন, আমদানি ও রপ্তানির উপর থেকে সরকারি নিয়ন্ত্রণ তুলে দেওয়া হচ্ছে, যা তৃতীয় বিশ্বের কৃষিক্ষেত্রে ও চাষীদের পক্ষে বিনাশের কারণ হয়ে উঠেছে| এছাড়া বিশ্বায়নের ফলে তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলিতে বিদেশি ঔষধের দাম বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং চিকিৎসার সুযোগ সাধারণ মানুষের আয়ত্বের বাইরে চলে যাচ্ছে|

তবে তৃতীয় বিশ্বের উপর বিশ্বায়নের নেতিবাচক প্রভাবকে স্বীকার করে নিলেও বলা যায় যে, আজকের দিনে বিশ্বায়ন একটি বাস্তব সত্য| কোন দেশের পক্ষেই বিশ্বায়নকে পুরোপুরিভাবে উপেক্ষা করে চলা সম্ভব নয়| বিশ্বায়নকে কাজে লাগিয়ে হংকং, সিঙ্গাপুর, তাইওয়ান, দক্ষিণ কোরিয়া, কমিউনিস্ট চীন প্রভৃতি দেশ নিজেদের অর্থনৈতিক ভিত্তিকে মজবুত করে নিয়েছে|

অধ্যাপক অমিয়কুমার বাগচী তাঁর "colonialism and indian economy capture and exclude: developing economies and the poor in global finance" পুস্তকে দেখিয়েছেন যে, বিশ্বায়নের শুভ দিককে কাজে লাগিয়ে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার অনেক দেশে "এশিয়ার টাইগারে" পরিণত হয়েছে| তাই তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলো যদি দেশের স্বার্থকে অনুকূলে বিশ্বায়নকে কাজে লাগাতে পারে, তাহলে তৃতীয় বিশ্বেরও বহুমাত্রিক পরিবর্তন ঘটবে|



তথ্যসূত্র

  1. Manfred B. Steger, "Globalization: A Very Short Introduction".
  2. BAYLIS ET AL, "The Globalization of World Politics 2nd".

সম্পর্কিত বিষয়

  1. ওপেক কি ? | What is OPEC ? (আরো পড়ুন)
  2. বিশ্বায়নের সংজ্ঞা এবং তৃতীয় বিশ্বের উপর বিশ্বায়নের প্রভাব (আরো পড়ুন)
  3. বিশ্বায়নের ইতিবাচক ও নেতিবাচক দিক আলোচনা (আরো পড়ুন)
  4. বহুজাতিক সংস্থার বৈশিষ্ট্য (আরো পড়ুন)
  5. GATT কি (আরো পড়ুন)
সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ| আশাকরি আমাদের এই পোস্টটি আপনার ভালো লাগলো| আপনার যদি এই পোস্টটি সম্বন্ধে কোন প্রশ্ন থাকে, তাহলে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে জানাতে পারেন এবং অবশ্যই পোস্টটি শেয়ার করে অপরকে জানতে সাহায্য করুন|
                     .......................................


    Previous Post Next Post

    মক টেস্ট

    ভিজিট করুন আমাদের মক টেস্ট গুলিতে- Click Here

    সাহায্যের প্রয়োজন ?

    প্রশ্ন করুন- Click Here

    ফেসবুকের মাধ্যমে আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন

    our Facebook page- Click Here

    Our Facebook Group- Click Here

    ইমেইলের মাধ্যমে ইতিহাস সম্পর্কিত নতুন আপডেটগুলি পান(please check your Gmail box after subscribe)

    নতুন আপডেট গুলির জন্য নিজের ইমেইলের ঠিকানা লিখুন:

    Delivered by FeedBurner