ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের নারী মুক্তির ভূমিকা

1820 সালে যখন বিদ্যাসাগরের জন্ম হয়, তখন বাংলার ধর্ম সমাজ জীবনে এক চরম অনিশ্চয়তা দেখা দেয়| তিনি যখন সংস্কৃত কলেজে পড়াশোনা করতেন, তখন তিনি সমাজের অবক্ষয়, কুসংস্কার ও নারী জাতির দুর্দশার কথা উপলব্ধি করেছিলেন| এই জন্য তিনি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হয়ে সমাজ সংস্কারে ঝাঁপিয়ে পড়েন| 



তিনি বিভিন্ন পত্রিকায় বাল্যবিবাহ বিরুদ্ধে প্রবন্ধ লিখতে থাকেন এবং পরবর্তীতে তিনি হিন্দু বিধবা মহিলাদের পক্ষেও বিভিন্ন কাজ করেন| 

তিনি বলেন, বিভিন্ন হিন্দু শাস্ত্রের স্লোগানে বিধবা বিবাহের সমর্থন আছে| তিনি বিধবা বিবাহের জন্য বা আইন করার জন্য সরকারকে চিঠি লিখেন| তার ফলে 1856 খ্রিস্টাব্দে 15 ই নভেম্বর রেগুলেশন দ্বারা সরকার বিধবা বিবাহকে বৈধ বলে ঘোষণা করেন|

এছাড়াও তিনি বহু বিবাহের বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা করেন|তিনি 50 হাজার ব্যক্তির সাক্ষর গ্রহণ করে বহু বিবাহের বিপক্ষে আইন করার জন্য সরকারের কাছে এক প্রতিবেদন পাঠান, কিন্তু তা সফল হয়নি| 

নারী শিক্ষা বিস্তারে বিদ্যাসাগরের অবদান ছিল যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ এবং সুদূর প্রসারী| তিনি মনে করতেন, সমাজে নারীদের অবস্থান উন্নতির জন্য তাদেরকে শিক্ষিত করতে হবে এবং শিক্ষায় সমাজে তাদের অবস্থার পরিবর্তন করতে পারবে| তবে এজন্য তিনি গ্রাম বাংলায় 35 টি বালিকা বিদ্যালয় স্থাপন করেছিলেন এবং তিনি 1849 খ্রিস্টাব্দে কলকাতায় বেথুন সাহেব এর সহযোগিতায় হিন্দু ফিমেল স্কুল(বর্তমানে বেথুন স্কুল) প্রতিষ্ঠা করেন|

পরিশেষে মহাবিদ্রোহের পর সরকার হিন্দুদের সামাজিক প্রথায় হস্তক্ষেপ করতে মোটেও রাজি ছিলেন না| তবে এই কথা ঠিক যে, রাজা রামমোহন রায়ের পরে বিদ্যাসাগরের ছাড়া আর কোন মহান মানব নারীর উন্নতির সম্পর্কে তেমন কিছু ভাবেননি|




তথ্যসূত্র

  1. সুমিত সরকার, "আধুনিক ভারতের ইতিহাস"
  2. শেখর বন্দ্যোপাধ্যায়, "পলাশি থেকে পার্টিশন"
  3. Sonali Bansal, "Modern Indian History".

সম্পর্কিত বিষয়

সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ| আশাকরি আমাদের এই পোস্টটি আপনার ভালো লাগলো| আপনার যদি এই পোস্টটি সম্বন্ধে কোন প্রশ্ন থাকে, তাহলে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে জানাতে পারেন এবং অবশ্যই পোস্টটি শেয়ার করে অপরকে জানতে সাহায্য করুন|
              ......................................................


নবীনতর পূর্বতন
👉 Join Our Whatsapp Group- Click here 🙋‍♂️

    
  
  
    👉 Join our Facebook Group- Click here 🙋‍♂️
  


  

   
  
  
    👉 Like our Facebook Page- Click here 🙋‍♂️

    👉 Online Moke Test- Click here 📝📖 

    
  
           

 Join Telegram... Family Members
  
     
                
                






টেলিগ্রামে যোগ দিন ... পরিবারের সদস্য









নীচের ভিডিওটি ক্লিক করে জেনে নিন আমাদের ওয়েবসাইটটির ইতিহাস সম্পর্কিত পরিসেবাগুলি


পরিক্ষা দেন

ভিজিট করুন আমাদের মক টেস্ট গুলিতে এবং নিজেকে সরকারি চাকরির জন্য প্রস্তুত করুন- Click Here

আমাদের প্রয়োজনীয় পরিসেবা ?

Click Here

ইমেইলের মাধ্যমে ইতিহাস সম্পর্কিত নতুন আপডেটগুলি পান(please check your Gmail box after subscribe)

নতুন আপডেট গুলির জন্য নিজের ইমেইলের ঠিকানা লিখুন:

Delivered by FeedBurner