ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস 1885 থেকে 1905 সাল পর্যন্ত

1885 খ্রিস্টাব্দে ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের প্রতিষ্ঠা আধুনিক ভারতের জাতীয় রাজনীতিতে এক গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা এবং 1885 থেকে 1905 খ্রিস্টাব্দে পর্যন্ত এই কুড়ি বছরে জাতীয় কংগ্রেসের কার্যকলাপ স্বাধীনতার আন্দোলনের ইতিহাসে এক উল্লেখযোগ্য অধ্যায়| কারণ এই জাতীয় কংগ্রেস প্রতিষ্ঠার পরে ভারতের জাতীয় আন্দোলন সঠিক এবং এক নতুন পথে অগ্রসর হয়|

এই সর্বভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের প্রথম অধিবেশনে সদস্য সংখ্যা ছিল 72 জন, দ্বিতীয় অধিবেশনের সদস্য সংখ্যা ছিল 231 জন, তৃতীয় অধিবেশনে সদস্য সংখ্যা ছিল 608 জন এবং চতুর্থ অধিবেশনে সদস্য সংখ্যা ছিল 1248 জন| তাছাড়া 1890 সালের অধিবেশনে প্রথম মহিলা প্রতিনিধি সম্মেলনে অংশগ্রহণ করেছিল| এইভাবে ক্রমে কংগ্রেসের সর্বভারতীয় চরিত্রটি ফুটে উঠে|

ভারতীয়-জাতীয়-কংগ্রেস-1885-থেকে-1905-সাল-পর্যন্ত
ব্রিটিশ পতাকা



প্রারম্ভিক কুড়ি বছরের জাতীয় কংগ্রেসের প্রায় সকল সদস্যই ছিলো পাশ্চাত্য শিক্ষা প্রাপ্ত মধ্যবর্তী শ্রেণীর জনগণ| তাছাড়া ব্রিটিশ শাসন এবং ন্যায় পদ্ধতির সমর্থক ছিলেন তারা| তাই এই পর্বে কংগ্রেসের কার্যকলাপ ও আন্দোলনকে উদারবাদী আন্দোলন বলা হয়|


সংস্কার মূলক কর্মসূচি

1885 খ্রিস্টাব্দে জাতীয় কংগ্রেস প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর প্রতিবছর সম্মিলিত হয়ে প্রথমে জাতীয় কংগ্রেসের সংগঠনটিকে একটি শক্তিশালী জোটের উপর প্রতিষ্ঠিত করে এবং ভারতীয়দের পক্ষ থেকে বিভিন্ন দাবি-দাওয়ার ভিত্তিতে বিভিন্ন রকমের সংস্কার মূলক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়|



সাংবিধানিক সংস্কার

উদার জাতীয়তাবাদী দেশের শাসন ব্যবস্থায় অংশগ্রহণ করার জন্যই গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থার দাবি করেন| 1885 থেকে 1905 খ্রিস্টাব্দের পর্যন্ত তারা "Legislative Council" এর বিস্তার এবং সংস্কারের দাবি পেশ করেন|

তারা আরও দাবি জানান যে, জনগণ দ্বারা নির্বাচিত প্রতিনিধিদেরই কাউন্সিলের সদস্যতা প্রদান করা হোক| তাদের আন্দোলনের ফলে 1892 খ্রিস্টাব্দে "Indian Council Act" এর শর্তগুলিতে জাতীয়তাবাদীগণ সন্তুষ্ট হন| এরফলে জাতীয়তাবাদী নেতারা কাউন্সিলে ভারতীয়দের অধিক সিট এবং ব্যাপক অধিকারের দাবি জানায়|

এরপর বিংশ শতাব্দীর প্রথম দিকে তারা অস্ট্রিয়া ও কানাডার মতো ভারতবর্ষেও স্বায়ত্তশাসনের দাবি করতে থাকে| 1905 খ্রিস্টাব্দে গোপালকৃষ্ণ গোখলে ও 1906 খ্রিস্টাব্দে দাদাভাই নওরোজি ব্রিটিশ সরকারের কাছ থেকে স্বায়ত্তশাসনের দাবি পেশ করেন|



অর্থনৈতিক সংস্কার

প্রারম্ভিক জাতীয় কংগ্রেসের নেতাগণ ভারতের ক্রমবর্ধমান দারিদ্রতা, অর্থনৈতিক মন্দা, শিল্পের পশ্চাৎপদতা, কৃষির অনগ্রসরতার মূলে ব্রিটিশ সরকারকে দায়ী করেন| ভারতীয় জাতীয়তাবাদী গণ ব্রিটিশ সরকারকে পরামর্শ দেন যে, দেশের দারিদ্রতা দূর করার জন্য আধুনিক শিল্প গড়ে তোলার প্রয়োজন| 

ভারতীয়-জাতীয়-কংগ্রেস-1885-থেকে-1905-সাল-পর্যন্ত
কৃষক
ভারতীয়-জাতীয়-কংগ্রেস-1885-থেকে-1905-সাল-পর্যন্ত
কৃষি জমি



এছাড়া দেশীয় অর্থ, দেশীয় শিল্পের বিনিয়োগ এবং সঠিক রাজস্ব নির্ধারণ ও কৃষকদের স্থায়ী ঋণ দানের স্পর্শকাতর দিকগুলির উপর বিশেষ গুরুত্ব আরোপ করেন| শ্রমিকদের অবস্থার উন্নতি, দরিদ্র জনগণের উন্নতি, লবণ ও ভূমি কর উচ্ছেদ প্রভৃতি দাবিগুলি অর্থনৈতিক সংস্কারের কর্মসূচির অন্তর্ভুক্ত ছিল|


শাসনতান্ত্রিক সংস্কার 

জাতীয় কংগ্রেসের উদারপন্থী নেতাগণ প্রশাসনিক ব্যবস্থায় ভারতীয়করণের পক্ষপাতী ছিলেন| শাসনতান্ত্রিক ব্যবস্থার মেরুদন্ড স্বরূপ ইন্ডিয়ান সিভিল সার্ভিস কর্মচারীদের নিয়োগ সংক্রান্ত সংস্কারের দাবি করেন|

তারা ব্যক্ত করেন যে, সিভিল সার্ভিস পরীক্ষায় ন্যূনতম বয়স 18 থেকে 21 বৃদ্ধি এবং পরীক্ষা গ্রহণ ইংল্যান্ডের পরিবর্তে ভারতবর্ষে একই সঙ্গে করতে হবে, যেন ভারতীয়রা উচ্চপদস্থ  কর্মচারীতে নিযুক্ত হতে পারে|


বিচার সংস্কার

নরমপন্থী জাতীয়তাবাদী নেতাগন বিচার সংস্কারের ক্ষেত্রেও কতগুলি উল্লেখযোগ্য দাবি উত্থাপন করেন, এগুলি হল-
  1. শাসন বিভাগ থেকে বিচার বিভাগের পৃথকীকরণ
  2. জুরি ব্যবস্থার বিলোপ সাধন 
  3. শিক্ষার প্রসার, কারিগরি শিক্ষার অগ্রগতি, স্বাস্থ্য চিকিৎসা ব্যবস্থা এবং পুলিশি ব্যবস্থায় সংস্কারের দাবি করেন|

ব্যক্তির স্বাধীনতা রক্ষা

প্রারম্ভিক নরমপন্থী নেতাগণ বাক স্বাধীনতা ও সংবাদপত্রের স্বাধীনতা রক্ষার প্রয়োজনীয়তা উপর অধিক গুরুত্ব আরোপ করেন| সংবাদপত্রের স্বাধীনতা ও মত প্রকাশের অধিকার রক্ষার সংগ্রাম তাদের স্বাধীনতা সংগ্রামের সঙ্গে সংযুক্ত হয়ে পড়ে| আবার সরকারের সমালোচনায় নেতা ছিলেন খুবই মুখর|

1897 খ্রিস্টাব্দে বক্তৃতা ও লেখার মাধ্যমে সরকারকে সমালোচনা করার অভিযোগে তিলক ও অপর সাতজনকে গ্রেপ্তার করা হয়| ব্যক্তি স্বাধীনতার উপর আঘাত আনার বিরুদ্ধে দেশের মানুষ প্রতিবাদী হয়ে উঠে| তিলকের গ্রেপ্তার জাতীয় আন্দোলনের গতি বৃদ্ধিতে সহায়তা করে|

ভারতীয়-জাতীয়-কংগ্রেস-1885-থেকে-1905-সাল-পর্যন্ত
ব্রিটিশ সৈনিক



কংগ্রেসে জাতীয়তাবাদী কার্যকলাপ এবং জনপ্রিয়তা ব্রিটিশ সরকারের উৎকণ্ঠার কারণ হয়ে উঠে| প্রথমদিকে কংগ্রেসের সঙ্গে ব্রিটিশ সরকারের সম্পর্ক ভালো থাকলেও কংগ্রেস সরকারের নিকট ক্রমাগত প্রস্তাব উত্থাপন করতে থাকায় ব্রিটিশ সরকার অসন্তুষ্ট হয়|

লর্ড ডাফরিন কংগ্রেসকে আণুবীক্ষণিক সংখ্যালঘুদের প্রতিনিধি বলে বিদ্রুপ করেন| নরমপন্থী জাতীয়তাবাদী কংগ্রেসের কার্যকলাপ দমন করার জন্য ব্রিটিশ সরকার ভারতীয় রাজনীতিতে বিভেদ নীতির অনুপ্রবেশ ঘটাতে সক্রিয় হয়ে উঠে| লর্ড ডাফরিন প্রকাশ্যে ঘোষণা করেন, ভারতে হিন্দু-মুসলমান দুটি স্বতন্ত্র জাতি এবং কংগ্রেস মুসলমান সম্প্রদায়ের প্রতিনিধি দাবি করতে পারবে না|

যাইহোক কংগ্রেস নেতৃবৃন্দ সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে প্রথম থেকে সচেতন থাকলেও জাতীয় কংগ্রেসে মুসলমান সম্প্রদায়ের প্রতিনিধি বাড়াতে পারেনি|


মূল্যায়ন

ভারতের জাতীয় সংগ্রামের ইতিহাসে কংগ্রেসের প্রথম পর্বে নরমপন্থী নেতাদের সৃজনশীল ভূমিকা থাকা সত্ত্বেও তাদের ভূমিকাকে লঘু করে দেখার প্রবণতা চোখে পড়ে| তাদের অনুসৃত নীতিকে ভিক্ষাবৃত্তি ও কাপুরুষতার রূপে চিহ্নিত করা হয়েছে|

নেতাদের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় অভিযোগ হলো, তারা ছিলেন মুষ্টিমেয় মন্থরে শিক্ষিত মধ্যবিত্ত সমাজের প্রতিনিধি এবং তারা দেশবাসীর স্বার্থের কথা চিন্তা না করে নিজ শ্রেণীর স্বার্থের দ্বারা পরিচালিত হয়েছিলেন| কিন্তু কংগ্রেসের প্রথম কুড়ি বছরের ইতিহাসকে ভারতীয় স্বাধীনতা সংগ্রামের ক্ষেত্রে এক গৌরবজনক অধ্যায় রূপে গণ্য করা যায়|

ব্যর্থতা ও দুর্বলতা সত্ত্বেও ভারতীয় স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসে কংগ্রেসের প্রথম দিকে নরমপন্থী নেতাদের অবদান শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণীয়| তারা ভারতের রাজনীতিতে ধর্মনিরপেক্ষ, উদার ও গণতান্ত্রিক জাতীয়তাবাদের ভিত্তি রচনা করেছিলেন এবং এই আদর্শগুলি জাতীয় কংগ্রেসের প্রধান মর্মবাণীতে পরিণত হয়েছিল|


তথ্যসূত্র

  1. সুমিত সরকার, "আধুনিক ভারত"
  2. শেখর বন্দ্যোপাধ্যায়, "পলাশি থেকে পার্টিশন"
  3. Ishita Banerjee-Dube, "A History of Modern India".

সম্পর্কিত বিষয়

  1. গান্ধীজীর ধারণায় হিন্দ স্বরাজ ও সম্প্রীতি তত্ত্বাবধান (আরো পড়ুন)
  2. সম্পদের বহির্গমন তত্ত্ব এবং এটি কিভাবে বাংলার অর্থনীতিকে প্রভাবিত করেছিল  (আরো পড়ুন)
  3. ১৮৫৮ সালের ভারত শাসন আইন  (আরো পড়ুন)
  4. ঊনবিংশ শতকে নারী সংক্রান্ত সমস্যা (আরো পড়ুন)
সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ| আশাকরি আমাদের এই পোস্টটি আপনার ভালো লাগলো| আপনার যদি এই পোস্টটি সম্বন্ধে কোন প্রশ্ন থাকে, তাহলে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে জানাতে পারেন এবং অবশ্যই পোস্টটি শেয়ার করে অপরকে জানতে সাহায্য করুন|
                     .......................................

    নবীনতর পূর্বতন
    👉 Join Our Whatsapp Group- Click here 🙋‍♂️
    
        
      
      
        👉 Join our Facebook Group- Click here 🙋‍♂️
      
    
    
      
    
       
      
      
        👉 Like our Facebook Page- Click here 🙋‍♂️
    
    
        👉 অনলাইনে মক টেস্ট দিন- Click here 📝📖 
    
    
    👉 আজকের দিনের ইতিহাস - Click here 🌐 🙋‍♂️
    
    
        
      
               
    
     Join Telegram... Family Members
      
         
                    
                    
    
    
    
    
    
    
    

    টেলিগ্রামে যোগ দিন ... পরিবারের সদস্য

    
    
    
    
    
    
    
    
    
    

    নীচের ভিডিওটি ক্লিক করে জেনে নিন আমাদের ওয়েবসাইটটির ইতিহাস সম্পর্কিত পরিসেবাগুলি

    
    

    পরিক্ষা দেন

    ভিজিট করুন আমাদের মক টেস্ট গুলিতে এবং নিজেকে সরকারি চাকরির জন্য প্রস্তুত করুন- Click Here

    আমাদের প্রয়োজনীয় পরিসেবা ?

    Click Here