আধুনিক ইউরোপের গোড়ার দিকে মেলা

মধ্যযুগে তথা আধুনিক ইউরোপের বাণিজ্যিক লেন-দেনে বিভিন্ন দেশের মেলা গুলো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা গ্রহণ করেছিল| ফেরিওয়ালা অল্প সময়ে মালপত্র নিয়ে গৃহস্থের বাড়িতে বিক্রি করত| বিভিন্ন শ্রেণীর কারিগররা তাদের তৈরি জিনিসপত্র ছোটখাট দোকানে কেনা-বেচা করত| কিন্তু পাইকারি ক্রয়-বিক্রয়, আন্তর্জাতিক পণ্য বিনিময় প্রভৃতির জন্য ইউরোপের বিভিন্ন শহরে মেলা বসতো|

ইংল্যান্ডের লন্ডন, স্টুরব্রিজ, ফ্রান্সের প্যারিস, জার্মানির ফ্রাঙ্কফুর্ট, লুব্বক, লিপজিগ এবং কোলন এ মেলার আয়োজন করা হতো| সমসাময়িককালে মেলাগুলো আন্তর্জাতিক বাণিজ্যিক বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছিল|


মেলা

মেলা
কাঠের ঘোড়া বা গাড়ি সমন্বিত ঘূর্ণমান চক্রবিশেষ



মেলাগুলো দুই ধরনের প্রকৃতিতে বিরাজ করত, অভ্যন্তরীণ এবং আন্তর্জাতিক উভয় গুরুত্বপূর্ণ এবং ক্রয়-বিক্রয়ের প্রাচুর্যে মেলাগুলো দৃষ্টি আকর্ষনীয় ছিল| অভ্যন্তরীণ মেলা সমূহে একটি রাষ্ট্রের বিভিন্ন শহরের পণ্যদ্রব্যের পাইকারি ক্রয়-বিক্রয় করত| অন্যদিকে আন্তর্জাতিক চরিত্রের মেলা সমূহে বৈদেশিক পণ্য সমুহের বিনিময় এবং ক্রয়-বিক্রয় চলতো| ফ্রান্সের শ্যাম্পেইন কাউন্টির চারটি নগরের বছরে দুইবার এই ধরনের আন্তর্জাতিক মেলা বসতো| সেন নদীর তীরবর্তী ত্রোয়াতে সেপ্টম্বর এবং নভেম্বর মাসে, ল্যানী নগরে জানুয়ারি মাসে, বার্গ এ মে মাসে এবং প্রোঁডিস এ দুবার মে ও সেপ্টম্বর মাসে আন্তর্জাতিক মেলা বসতো| আন্তর্জাতিক মেলা গুলিতে ফ্রান্সের রাইন উপত্যকা, স্পেন, ইতালি এমনকি উত্তর আফ্রিকার বণিকরা ও বিভিন্ন প্রকার পণ্য সম্ভার ক্রয়-বিক্রয়ের জন্য যোগ দিত|

উক্ত এই মেলা সমূহে নানা প্রকার দব্যের ক্রয়-বিক্রয় চলতো| প্লান্ডার্সের বস্ত্র, লুক্কার রেশমি বস্ত্র, স্পেন, উত্তর আফ্রিকা ও প্রোঁডিসের চামড়া দ্রব্যাদি, জার্মানির সুতি বস্ত্রের পাইকারি কেনা-বেচা হত| ইতালির বণিকেরা বিদেশের পণ্যাদি যেমন- মশলা, চিনি, ফিটকিরি, রঞ্জক প্রভৃতির সরবরাহ করতো|

প্রাথমিক অবস্থায় শ্যাম্পেনের মেলাগুলির গুরুত্ব ছিল সীমাবদ্ধ ও আঞ্চলিক| 1174 সালের একটি দলিল থেকে জানা যায় যে, বার্গের মেলাতে অশ্বাদি পশু ক্রয়-বিক্রয় হতো| এই সময় উত্তরাঞ্চলের বস্ত্র ব্যবসায়ীরা তাদের পণ্য সম্ভার ইতালির বিভিন্ন বাণিজ্য কেন্দ্রের নিয়ে যেত| তবে দ্বাদশ শতকের শেষের দিকে ইতালির বণিকদের যোগদানের ফলে শ্যাম্পেনের মেলাগুলির উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পায়| প্রথমদিকে শ্যাম্পেনের কাউন্টারা এই মেলা গুলো তত্ত্বাবধান করত| কিন্তু দ্বাদশ শতকের শেষের দিকে মেলাগুলির প্রত্যক্ষ দায়িত্ব গ্রহণ করেন ফ্রান্সের রাজা চতুর্থ ফিলিপ| অর্থাৎ আলোচ্য মেলাগুলি সংগঠনের ক্ষেত্রে প্রশাসনিক উদ্যোগ যেমন নেওয়া হতো, তেমনি মেলা গুলির উপর প্রশাসনিক নিয়ন্ত্রণও স্থাপিত হতো|

আলোচ্য এই মেলা গুলির একটি বিশেষ বৈশিষ্ট্য ছিল, মেলা গুলির দোকান সমূহের উপর রাজস্ব আদায়| তবে শুধু দোকান গুলির উপর নয়, সাময়িক আবাসনের উপরেও কর স্থাপন করা হয়েছিল| তাছাড়া বিক্রয়ের জন্য আমদানিকৃত পণ্য ও বিক্রিত পণ্যের উপরেও বিভিন্ন হারে শুল্ক বসানো হতো| মেলা গুলির পরিচালক বৃন্দ শান্তি-শৃঙ্খলার দায়িত্ব বহন করতেন এবং মেলার সীলমোহর তাদের দায়িত্বে থাকত| তাছাড়া বহুসংখ্যক রাজকর্মচারী মেলায় পণ্য সম্ভার ক্রয়-বিক্রয় সংক্রান্ত বিবাদ নিষ্পত্তির জন্য নিযুক্ত থাকতো|

শ্যাম্পেনের মেলাগুলোর প্রয়োজনীয়তা বৃদ্ধির সিংহভাগ কর্তৃত্ব থাকতো ফরাসি সম্রাটদের| স্বয়ং ফ্রান্সের রাজা বিদেশি বণিকদের নিরাপত্তার দায়িত্ব গ্রহণ করতেন| 1207 সালে ফরাসি সম্রাট ফিলিপ অগাস্টাস বিদেশি বণিকদের নিরাপত্তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন| মেলা শেষ হয়ে যাওয়ার আরও তিন মাস সময় বণিকদের দেওয়া হতো, যাতে তারা নিরাপদে দেশে প্রত্যাবর্তন করতে পারে|

মেলা
পশম বস্ত্র

মেলা
চর্ম নির্মিত দ্রব্যাদি 



মেলাগুলোর পরিচালকদের পত্রাবলীও প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ব্যবসায়ীদের মধ্যে ক্রয়-বিক্রয় সংক্রান্ত চুক্তি যাতে যথাযথভাবে পালিত হয় সে বিষয়ে কর্মচারীদের কর্মচারীদের তীক্ষ্ণ দৃষ্টি ছিল| মেলা গুলির শুরু হওয়ার 44 দিন পর্যন্ত মেলা চত্বরে প্রবেশধিকার ছিল| 10 দিনের মধ্যে বস্ত্রাদি, 11 দিনের মধ্যে চর্ম নির্মিত দ্রব্যাদি এবং যেসব দ্রব্যাদি ওজন করতে হত তা 19 দিনের মধ্যে ক্রয়-বিক্রয় শেষ করে হিসাব পত্র পেশ করার নিয়ম প্রচলিত ছিল| মেলা গুলির ক্রয়-বিক্রয়ের যে হিসাব পাওয়া যায় তা থেকে স্পষ্ট বোঝা যায় যে, উত্তরাঞ্চলের বণিকদের বিশেষ সুযোগ দেওয়া হতো, যাতে তারা পশম বস্ত্র ও চর্ম নির্মিত দ্রব্যাদি বিক্রয় করে সুবিধাজনক মূল্যে ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চল ও প্রাচ্যের পণ্য সম্ভার ক্রয় করতে পারে| মেলাগুলির জনপ্রিয়তা ক্রয়-বিক্রয় পরিমান, বণিকদের স্বার্থের জন্য বিভিন্ন নগর-রাষ্ট্র "কনসুলেট" গঠন করে| ত্রয়োদশ শতকের দ্বিতীয়ার্ধে মধ্যে 15টি ইতালির নগরী শ্যাম্পেনের মেলার তত্ত্বাবধানের জন্য কনসুলেট প্রতিষ্ঠা করেছিল|

এভাবে মধ্যযুগের সায়াহ্ন লগ্নে এবং প্রাক আধুনিক যুগে ইউরোপের মেলা গুলির অর্থনৈতিক দিক থেকে অন্তত গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছিল| আবার সামাজিক ও সাংস্কৃতিক থেকেও মেলা গুলির গুরুত্ব ছিল| মেলা গুলিকে কেন্দ্র করে শহর ও নগর গড়ে উঠেছিল|



মেলা গুলির অবলুপ্তির কারণ

কিন্তু অল্পকালের মধ্যেই মেলা গুলির গুরুত্ব হ্রাস পেতে থাকে| মেলা গুলির গুরুত্ব হ্রাসের তথা অবলুপ্তির বিভিন্ন কারণ দায়ী ছিল|

অনেকেই মেলা গুলির গুরুত্ব হ্রাসের জন্য ফরাসি সরকার কর্তৃক ব্যবসায়ীদের উপর অতিরিক্ত কর আরোপ এবং বাণিজ্য কেন্দ্র রূপে লিও এর উত্থানকে দায়ী করেছেন| ঐতিহাসিক উইল ডুরান্ট শ্যাম্পেনের অভিজাত কাউন্টদের হাত থেকে মেলাগুলির ত্ত্বাবধানের দায়িত্ব কেড়ে নিয়ে সরকার মেলায় অংশগ্রহণকারীদের বণিকদের কর ভারে জর্জরিত করে| এজন্য তিনি ফরাসি সম্রাট চতুর্থ ফিলিপকে দায়ী করেছেন|

আবার অনেকে ফরাসি রাজার নিরবিচ্ছিন্ন যুদ্ধ-বিগ্রহকেই দায়ী করেছেন| সামুদ্রিক বাণিজ্য পথের ক্রমবর্ধমান জনপ্রিয়তা এবং উত্তর ইতালির বাণিজ্য কেন্দ্রগুলোর বস্ত্র উৎপাদনে অসামান্য সাফল্য মেলার জনপ্রিয়তা লুপ্তর কারণ বলে মনে করেন| আবার অনেকে রৌপ্য মুদ্রার প্রচলনই ছিল শ্যাম্পেন সহ অন্যান্য বাণিজ্য মেলার অবলুপ্তির কারণ|

তাছাড়া বলা যায় যে, আধুনিক যুগের সূচনায় অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে বিরাট পরিবর্তন আসে| এসময় নতুন নতুন বাণিজ্য কেন্দ্র ও স্থায়ী বাজার গড়ে উঠতে থাকে, যোগাযোগ ব্যবস্থারও উন্নতি হয়| কৃষকেরা বাজার গুলির চাহিদার উপর নির্ভর করে কৃষিপণ্য উৎপাদন শুরু করে| ফলে মেলাগুলো যেভাবে পূর্বের অর্থনীতিকে নিয়ন্ত্রণ করত, সেই ক্ষমতা হারিয়ে ফেলে, যা মেলা গুলির গুরুত্বের হ্রাস ঘটায়|


মূল্যায়ন

এতসত্ত্বেও মেলা গুলির গুরুত্বকে অস্বীকার করা যায় না| এই বাণিজ্যিক মেলা গুলির জন্য প্রাক আধুনিক যুগের বহু নগরই আর্থিক দিক থেকে বিশেষ করে উপকৃত হয়েছিল| দূর-দূরান্তের বণিকদের এক জায়গায় সম্মিলিত করে বাণিজ্যিক মেলাগুলি ভূমধ্যসাগর ও উত্তর সাগরের মধ্যে যোগাযোগ স্থাপনের ভূমিকা গ্রহণ করেছিল| এই মেলাগুলির মাধ্যমে ইউরোপের বিভিন্ন শিল্প কেন্দ্রের সঙ্গে বাণিজ্য কেন্দ্র গুলি যুক্ত হতে সমর্থ হয়েছিল|



তথ্যসূত্র

  1. অধ্যাপক গোপালকৃষ্ণ পাহাড়ি, "ইউরোপের ইতিবৃত্ত"
  2. Benjamin Sax, "Western Civilization: From Early Modern Europe to the Present".

সম্পর্কিত বিষয়

সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ| আশাকরি আমাদের এই পোস্টটি আপনার ভালো লাগলো| আপনার যদি এই পোস্টটি সম্বন্ধে কোন প্রশ্ন থাকে, তাহলে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে জানাতে পারেন এবং অবশ্যই পোস্টটি শেয়ার করে অপরকে জানতে সাহায্য করুন|
                     .......................................

    নবীনতর পূর্বতন
    👉 Join Our Whatsapp Group- Click here 🙋‍♂️
    
        
      
      
        👉 Join our Facebook Group- Click here 🙋‍♂️
      
    
    
      
    
       
      
      
        👉 Like our Facebook Page- Click here 🙋‍♂️
    
    
        👉 Online Moke Test- Click here 📝📖 
    
    
        
      
               
    
     Join Telegram... Family Members
      
         
                    
                    
    
    
    
    
    
    
    

    টেলিগ্রামে যোগ দিন ... পরিবারের সদস্য

    
    
    
    
    
    
    
    
    
    

    নীচের ভিডিওটি ক্লিক করে জেনে নিন আমাদের ওয়েবসাইটটির ইতিহাস সম্পর্কিত পরিসেবাগুলি

    
    

    পরিক্ষা দেন

    ভিজিট করুন আমাদের মক টেস্ট গুলিতে এবং নিজেকে সরকারি চাকরির জন্য প্রস্তুত করুন- Click Here

    আমাদের প্রয়োজনীয় পরিসেবা ?

    Click Here

    ইমেইলের মাধ্যমে ইতিহাস সম্পর্কিত নতুন আপডেটগুলি পান(please check your Gmail box after subscribe)

    নতুন আপডেট গুলির জন্য নিজের ইমেইলের ঠিকানা লিখুন:

    Delivered by FeedBurner