ইউরোপের দাস প্রথার ইতিহাস

ষোড়শ শতাব্দীতে অর্থনৈতিক দিক দিয়ে পূর্ব ইউরোপ পশ্চিম ইউরোপের তুলনায় পিছিয়ে ছিল| এই সময় পূর্ব ইউরোপে শিল্প পণ্যের উৎপাদন ছিল কম এবং উৎপাদনের উপর সামন্তপ্রভুদের প্রভাব ছিল| এই সময় ইউরোপের অর্থনৈতিক ব্যবস্থা সামন্তপ্রভুদের স্বার্থের অনুকূল ছিল এবং এর ভিত্তি ছিল বেগার শ্রমদান প্রথা|

এই সময় সামন্তপ্রভুরা ভূমিদাসদের শোষণ করে তাদের লাভের মাত্রা বজায় রেখেছিলেন| সমগ্র উৎপাদন ব্যবস্থার উপর সামন্তপ্রভুদের প্রত্যক্ষ নিয়ন্ত্রণ ছিল এবং তাদের উৎপাদন ব্যবস্থার প্রধান উপকরণ ছিল ভূমিদাস প্রথা|

দাস-প্রথার-ইতিহাস

দাস-প্রথার-ইতিহাস
কৃষি জমি


দিনমজুর দিয়ে চাষ করলে সামন্তপ্রভুদের লাভের পরিমাণ কম হতো| তাই তারা ভূমিদাস দিয়ে চাষ করিয়ে লাভের মাত্রা বাড়িয়েই চলছিল| তাছাড়া বেগার শ্রম সহজলভ্য ছিল বলে ভূস্বামীরা উৎপাদন পদ্ধতির পরিবর্তন করতে চায়নি, এমনকি তারা প্রযুক্তির প্রয়োগও চায়নি|

ষোড়শ শতকে উপনিবেশিক সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠার পর ইউরোপের বিভিন্ন দেশে শ্রম শক্তির অভাব দূর করার জন্য সুদূর আফ্রিকা থেকে ক্রীতদাস নিয়ে আসা হতো| এমনকি আমেরিকার বিভিন্ন ক্ষেত্রে ক্রীতদাসদের নিয়োগ করা হতো| সপ্তদশ শতকে এসে দাস ব্যবসা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ হয়ে ওঠে|

ষোড়শ শতকে যেখানে প্রতি বছর আনুমানিক 3800 জন ক্রীতদাসকে আফ্রিকা থেকে নিয়ে আসা হতো| সপ্তদশ শতকে তা বেড়ে হয়েছিল বছরে 24100 জন| অনুমান করা হয় যে, সপ্তদশ শতকের মধ্যে প্রায় 20 লক্ষ আফ্রিকান নাগরিককে ক্রীতদাস হিসাবে আমেরিকায় আনা হয়েছিল|

ক্রীতদাসরা সকলেই কৃষ্ণকায় ছিলেন এমনটাই নয়, ষোড়শ শতকের ইউরোপের অনেক কৃষকই স্বাধীনতা হারিয়ে ভূমিদাসে পরিণত হয়েছিল| আবার ঋণ জালে জর্জরিত রাশিয়ার বহু কিছু কৃষকই স্বেচ্ছায় ভূমিদাসত্ব গ্রহণ করেছিল|

দাস বাণিজ্যের জন্য Asiento নামে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করতে হতো| একজন কন্ট্রাক্টর যিনি সমগ্র দাস বাণিজ্য সংগঠিত করতেন, তিনিই এই চুক্তি স্বাক্ষর করতেন| সরকার তাকে তার অধীনে সাব-কন্ট্রাকটারদের লাইসেন্স বিক্রি করার দায়িত্ব দিয়েছিল| এর থেকে যে অর্থ প্রাপ্তি হতো তা রাজকোষে প্রেরণ করা হতো| দাস বাণিজ্যের এই দালাল ও উপদালাল আফ্রিকা থেকে আমেরিকাতে সরাসরি জাহাজে করে দাসদের প্রেরণ করতো| প্রয়োজনে রক্ষাবাহিনীও প্রেরণ করা হতো| বুয়েনোস এর্য়াসের বন্দরে দাসদের একত্রিত করা হতো| রাজার ইচ্ছামত দালালরা নির্দিষ্ট সংখ্যক দাসদের নির্দিষ্ট বন্দরে প্রেরণ করতো, যেখানে তাদের প্রয়োজন ছিল|


তথ্যসূত্র

  1. Hugh Thomas, "The Slave Trade: History of the Atlantic Slave Trade, 1440-1870".
  2. Jesse, Jr. Torrey, "American Slave Trade".

সম্পর্কিত বিষয়

সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ| আশাকরি আমাদের এই পোস্টটি আপনার ভালো লাগলো| আপনার যদি এই পোস্টটি সম্বন্ধে কোন প্রশ্ন থাকে, তাহলে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে জানাতে পারেন এবং অবশ্যই পোস্টটি শেয়ার করে অপরকে জানতে সাহায্য করুন|
                     .......................................

    নবীনতর পূর্বতন
    👉 Join Our Whatsapp Group- Click here 🙋‍♂️
    
        
      
      
        👉 Join our Facebook Group- Click here 🙋‍♂️
      
    
    
      
    
       
      
      
        👉 Like our Facebook Page- Click here 🙋‍♂️
    
    
        👉 Online Moke Test- Click here 📝📖 
    
    
        
      
               
    
     Join Telegram... Family Members
      
         
                    
                    
    
    
    
    
    
    
    

    টেলিগ্রামে যোগ দিন ... পরিবারের সদস্য

    
    
    
    
    
    
    
    
    
    

    নীচের ভিডিওটি ক্লিক করে জেনে নিন আমাদের ওয়েবসাইটটির ইতিহাস সম্পর্কিত পরিসেবাগুলি

    
    

    পরিক্ষা দেন

    ভিজিট করুন আমাদের মক টেস্ট গুলিতে এবং নিজেকে সরকারি চাকরির জন্য প্রস্তুত করুন- Click Here

    আমাদের প্রয়োজনীয় পরিসেবা ?

    Click Here

    ইমেইলের মাধ্যমে ইতিহাস সম্পর্কিত নতুন আপডেটগুলি পান(please check your Gmail box after subscribe)

    নতুন আপডেট গুলির জন্য নিজের ইমেইলের ঠিকানা লিখুন:

    Delivered by FeedBurner