গিয়াসউদ্দিন বলবনের কৃতিত্ব ও রাজতান্ত্রিক আদর্শ

সুলতান গিয়াসউদ্দিন বলবনের শাসনকাল সুলতানি সাম্রাজ্যের ইতিহাসে একটি গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়| সাফল্যের সঙ্গে বহিঃশত্রুর আক্রমণ মোকাবেলা করে এবং আমির ওমরাহদের ক্ষমতা খর্ব করে বলবন রাজতন্ত্রের নিরঙ্কুশ আধিপত্য ও মর্যাদা প্রতিষ্ঠা করেন| সামরিক বাহিনীর শক্তির উপর প্রতিষ্ঠিত একটি কেন্দ্রীভূত শাসন কাঠামো তার আমলেই গড়ে ওঠে|

গিয়াসউদ্দিন-বলবনের-কৃতিত্ব-ও-রাজতান্ত্রিক-আদর্শ



ইলতুৎমিশের মৃত্যুর পরবর্তী 30 বছর তুর্কি সাম্রাজ্যের অভ্যন্তরীণ ও বাইরের অবস্থা অত্যন্ত শোচনীয় হয়ে পড়েছিল| রাজ্য কোষের অর্থাভাব, আমির ওমরাহদের ষড়যন্ত্র ও স্বার্থনেশি মনোভাবের জন্য রাজ্যে শান্তি-শৃঙ্খলা ছিল না বললেই চলে| কেন্দ্রীয় শক্তি দুর্বলতার সুযোগে সূচনা করেছিল ভয়ঙ্কর মোঙ্গল আক্রমণ| সৃষ্টি হয়েছিল চরম অরাজকতা এবং রাষ্ট্রের মর্যাদা বিনষ্ট হয়েছিল| তাই বলবন প্রথম থেকে রাজতন্ত্রের মর্যাদা ও সুলতানি শক্তির গুরুত্ব সম্পর্কে সচেতন ছিলেন|

রাজতন্ত্রের মর্যাদা বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে বলবন পারস্যের সাসানীয় বংশের অনুকরণে তার নরপতিত্বের আদর্শ প্রচার করেন| রাজপদকে মহিমান্বিত করে তোলার জন্য নিজেকে "নায়েব-ঈ-খুদায়" অর্থাৎ ঈশ্বরের প্রতিনিধি বলে ঘোষণা করেন|

রাজার ক্ষমতা ও মর্যাদা প্রসঙ্গে বলবন একদা তার পুত্র বুখরা খাঁকে বলেছিলেন, "নরপতির হৃদয় ঈশ্বরের বিশেষ বিশেষ অনুগ্রহের আধার এবং এই দিক থেকে তার সমকক্ষ মানবজাতির মধ্যে কেউ নেই"| তিনি মনে করতেন, জনসাধারণ বা আমির ওমরাহদের ইচ্ছায় সিংহাসনে বসেননি| ঈশ্বর আর্দিষ্ট পুরুষ হিসাবে তার কাজকর্মকে সমালোচনা করার অধিকার মর্ত্যলোকের কারোর নেই| তিনি তার এই স্বর্গীয় ক্ষমতার দাবি জোরালো করার জন্য খলিফার ফরমান সংগ্রহ করেন|


রাজার স্বাতন্ত্র্যতা বজায় রাখার জন্য তিনি নিজেকে উচ্চবংশজাত বলে দাবি করতেন| অভিজাত বংশীয় নয় এবং কোনো ব্যক্তির সঙ্গে বাক্যলাপকে তিনি মর্যাদা হানিকর বলে মনে করতেন| সিংহাসনে মর্যাদা বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে দৃষ্টান্ত অনুসরণ করে তিনি দরবারে নানারকম আদব-কায়দা চালু করেন| সুসজ্জিত পোশাক এবং উন্মুক্ত তরবারি হস্তে বিশেষ রাজকীয় বাহিনীর দ্বারা পরিবৃত্ত না হয়ে তিনি কখনও দরবারে বা জনসমক্ষে বের হতেন না| দরবারে গাম্ভীর্য বজায় রাখার জন্য সকল প্রকার চাপল্য ও হাসি-ঠাট্টা, মদ্যপান, নাচ-গান প্রভৃতি নিষিদ্ধ করেন| পারস্য সম্রাটের অনুকরণে সিজদা(সিংহাসনের সামনে নতজানু হওয়া) এবং পাইবস(সম্রাটের পদ যুগল চুম্বন করা) প্রথার প্রবর্তন করেন| এইভাবে বলবন তার চারপাশে এক অস্বাভাবিক পরিবেশ সৃষ্টি করে প্রমাণ করেন যে, রাজার সকলের ঊর্ধ্বে|

গিয়াসউদ্দিন-বলবনের-কৃতিত্ব-ও-রাজতান্ত্রিক-আদর্শ
সিজদা প্রথা



বলবন কারো সঙ্গেই রাষ্ট্রক্ষমতা ভাগ করে নিতে রাজি ছিলেন না, এমনকি তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গেও নয়| রাজতান্ত্রিক উচ্চ আকাঙ্ক্ষা পূরণের পথে প্রধান অন্তরায় চল্লিশ চক্রের তুর্কি অভিজাতদের অনেকের জায়গীর তিনি বাজেয়াপ্ত করেন| আবার কয়েকজনকে তিনি বিষ প্রয়োগ করে হত্যাও করেন| এইভাবে ইলতুৎমিশের আমলে গড়ে ওঠা চল্লিশ চক্র ভেঙে যায় এবং সুলতানের স্বেচ্ছাচার প্রতিষ্ঠিত হয়|

বলবনের সিংহাসন আহরণ করার সাথে সাথেই দিল্লির নিকটবর্তী অঞ্চলে মেওয়াটী দস্যুদের ক্রিয়া-কলাপ, দোয়াব অঞ্চল, অযোধ্যা এবং রোহিত খন্ডের রাজনৈতিক অস্থিরতা ও আইন-শৃঙ্খলার ভাঙ্গন দিল্লির সুলতানি অস্তিত্বের সামনে সংকট সৃষ্টি করেছিল| আইন-শৃঙ্খলাকে শক্ত হাতে প্রয়োগ করে এসব অঞ্চলে শান্তি প্রতিষ্ঠা বলবনের অন্যতম প্রধান কৃতিত্ব|

পরিশেষে অধ্যাপক হাবিব উল্যাহ বলেছেন যে, বলবনের একটি মাত্র কৃতিত্বই তাকে ইতিহাসে অমর করে রাখার পক্ষে যথেষ্ট, তা হলো রাষ্ট্রকে তার প্রকৃত মর্যাদার সাথে সুপ্রতিষ্ঠিত করা| বিচ্ছিন্নতাবাদী ও শত্রুভাবাপন্ন শক্তিগুলিকে সুলতানির বশীভূত করার সুনির্দিষ্ট ও দৃঢ় পদক্ষেপ গ্রহণ করে বলবন আইবক ও ইলতুৎমিশের অসমাপ্ত কাজকে পূর্ণতা এনে দেন|




তথ্যসূত্র

  1. অধ্যাপক গোপালকৃষ্ণ পাহাড়ী, "মধ্যকালীন ভারত"
  2. সতীশ চন্দ্র, "মধ্যযুগে ভারত"
  3. Charles River Editors, "The Mamluks: The History and Legacy of the Medieval Slave Soldiers Who Established a Dynasty in Egypt".

    সম্পর্কিত বিষয়

    সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ| আশাকরি আমাদের এই পোস্টটি আপনার ভালো লাগলো| আপনার যদি এই পোস্টটি সম্বন্ধে কোন প্রশ্ন থাকে, তাহলে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে জানাতে পারেন এবং অবশ্যই পোস্টটি শেয়ার করে অপরকে জানতে সাহায্য করুন|
                  ......................................................


    নবীনতর পূর্বতন
    👉 Join Our Whatsapp Group- Click here 🙋‍♂️
    
        
      
      
        👉 Join our Facebook Group- Click here 🙋‍♂️
      
    
    
      
    
       
      
      
        👉 Like our Facebook Page- Click here 🙋‍♂️
    
    
        👉 Online Moke Test- Click here 📝📖 
    
    
        
      
               
    
     Join Telegram... Family Members
      
         
                    
                    
    
    
    
    
    
    
    

    টেলিগ্রামে যোগ দিন ... পরিবারের সদস্য

    
    
    
    
    
    
    
    
    
    

    নীচের ভিডিওটি ক্লিক করে জেনে নিন আমাদের ওয়েবসাইটটির ইতিহাস সম্পর্কিত পরিসেবাগুলি

    
    

    পরিক্ষা দেন

    ভিজিট করুন আমাদের মক টেস্ট গুলিতে এবং নিজেকে সরকারি চাকরির জন্য প্রস্তুত করুন- Click Here

    আমাদের প্রয়োজনীয় পরিসেবা ?

    Click Here

    ইমেইলের মাধ্যমে ইতিহাস সম্পর্কিত নতুন আপডেটগুলি পান(please check your Gmail box after subscribe)

    নতুন আপডেট গুলির জন্য নিজের ইমেইলের ঠিকানা লিখুন:

    Delivered by FeedBurner