ষোড়শ শতকে জাতিরাষ্ট্র উত্থানের কারণ সমূহ

পঞ্চদশ ও ষোড়শ শতকে জাতি রাষ্ট্রের উদ্ভব হয়েছিল, বিশ্বজনীন সাম্রাজ্য ও বিশ্বজনীন ধর্মের ধারণা ভেঙে পড়েছিল- মধ্যযুগের ইতিহাসে যা এক অভূতপূর্ব ঘটনা হিসেবে চিহ্নিত| প্রথমে স্পেনে ইসাবেলা ও ফার্দিনান্দ গণদের নেতৃত্বে জাতি রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠা হয়েছিল| পঞ্চদশ শতকের রেনেসাঁস, সংস্কার আন্দোলনভৌগোলিক আবিষ্কার এই জাতিরাষ্ট্র উদ্ভবের পেছনে ইন্ধন জুগিয়েছিলেন বলা যায়|

মধ্যযুগের রাজতন্ত্র দুর্বল হয়ে পড়লে, সামন্ত শাসকেরা রাজার সমস্ত ক্ষমতা গ্রাস করে নেয়| সামন্ততান্ত্রিক উৎপাদন ব্যবস্থার পতন ঘটলে উদীয়মান বুর্জোয়ারা শক্তিশালী রাজতন্ত্র গঠনের স্বপ্ন দেখেন| জনৈক ঐতিহাসিক জানিয়েছেন যে, শহরবাসী বণিকরা, সামন্তরা ও রাজতন্ত্র গঠনের সাহায্য করেছিল| এককথায় বলতে গেলে মুদ্রা নির্ভর অর্থনীতি, শিল্পকর্ম উৎপাদন, জনসংখ্যা বৃদ্ধি, নগরের বিকাশ ও ব্যবসা-বাণিজ্যের বিস্তার শক্তিশালী রাজতন্ত্রের উত্থানের পটভূমি রচনা করেছিল|

জাতিরাষ্ট্র
নগর
জাতিরাষ্ট্র
বানিজ্য জাহাজ


আলোচ্য সময়ে পশ্চিম ইউরোপের ফ্রান্স ছিল সবচেয়ে বৃহত্তর রাষ্ট্র| তার জনসংখ্যাও ছিল সবচেয়ে বেশি এবং কৃষি উৎপাদনে ফ্রান্স ইউরোপের অন্যান্য রাষ্ট্রের তুলনায় এগিয়ে ছিল| ফ্রান্সের কেলটিক জাতি, ভাষা ও সংস্কৃতিকে আশ্রয় করে এই জাতীয়তাবাদের বিকাশ হয়েছিল| এই সময় থেকে ফ্রান্স উত্তর-পশ্চিমে ব্রিটানি(Brittany), পশ্চিমে আটলান্টিক এবং ভূমধ্যসাগর পর্যন্ত রাজ্য বিস্তারের পরিকল্পনা করেন| এই নীতি অনুসরণে কার্যকারী ভূমিকা নিয়েছিলেন একাদশ লুই ও অষ্টম চার্লস| বলাবাহুল্য তাদের নেতৃত্বে 1491 সালে ব্রিটানি অন্তর্ভুক্ত হলে ফ্রান্সের জাতিরাষ্ট্র স্পষ্ট রূপ পরিগ্রহ করে|

তবে ফ্রান্সের জাতিরাষ্ট্রর গঠনের পথে নানা ধরনের প্রতিবন্ধকতা ছিল| ইউরোপের রিফর্মেশন শুরু হলে ফ্রান্স তখন ধর্মীয় দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়ে এবং ধর্মীয় দ্বন্দ্বের সাথে যুক্ত হয় রাজনীতি| স্পেন সেইসময় ফ্রান্সের রাজনৈতিক স্বার্থে হস্তক্ষেপ করেছিল, অস্ট্রিয়া ফ্রান্সকে তার রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে গণ্য করতো| ইতালি নিয়ে স্পেনের সঙ্গে ফ্রান্সের দীর্ঘস্থায়ী শত্রুতা চলছিল| এর ফলে ফ্রান্সে জাতি রাষ্ট্র গঠনের কাজ ব্যাহত হয়|

তবে সপ্তদশ শতকের মধ্যভাগে ফ্রান্সের রাজতন্ত্র শক্তিশালী হয়ে পড়লে জাতিরাষ্ট্র কিছুটা শক্তিশালী রূপ ধারণ করে| রাজারা সেই সময় প্রাদেশিক ও স্থানীয় শাসন ব্যবস্থা গড়ে তোলেন এবং পরিচালক নামক কর্মচারীর হাতে দেশ শাসনের দায়িত্বভার অর্পণ করা হয়| আইনসভাকে নিয়ন্ত্রণে রাখা হয়| সম্রাটগণ বেতনভুক্ত সেনাবাহিনী গঠন করেন| স্থায়ী আমলাতন্ত্র ও বিচার ব্যবস্থা গড়ে তোলা হয়| রাষ্ট্রীয় ব্যয় নির্বাহের জন্য কর ব্যবস্থার সংস্কার করা হয়| ভূমিকর, লবণকর স্থাপন করা হয়| ভূমি নির্ভর অভিজাতেরা রাজাকে কর দিতে বাধ্য হন| এর ফলে অভিজাত, এমনকি সাধারণ মানুষ রাজতন্ত্রের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করে| কিন্তু রাজার সেনাবাহিনী তা দমন করে সপ্তদশ শতকে ফ্রান্সে জাতিরাষ্ট্রকে শক্তিশালী করে তুলতে সক্ষম হয়|

জাতিরাষ্ট্র
চার্চ


ইংল্যান্ডে টিউডর রাজারা জাতীয় রাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিয়েছিলেন| ইংল্যান্ডে 30 বছরের বেশি সময় ধরে সংগঠিত গৃহযুদ্ধে জয়ী হয়ে টিউডররা ক্ষমতা দখল করেছিল এবং ইংল্যান্ডে একটি শক্তিশালী রাজতন্ত্র গঠনে বদ্ধপরিকর হয়েছিল| ইংল্যান্ডের অতি শক্তিশালী ভূস্বামী শ্রেণী ও ক্যাথলিক চার্চ রাজতন্ত্র গঠনের পথে প্রধান অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়েছিলো| রাজা সপ্তম হেনরির আমলে ঐ সকল ভূস্বামী শ্রেণী ও অভিজাতদের দমনের জন্য বিভিন্ন আইন পাস করা হয়েছিল এবং শক্তিশালী স্টার চেম্বার কোর্ট গঠন করে তাদের দমনের ব্যবস্থা করা হয়েছিল| রাজা সপ্তম হেনরি অভিজাতদের ভূমি অধিগ্রহণ করে রাষ্ট্রের আয় বাড়িয়ে নেন| অভিজাতদের রাজকীয় কর দিতে বাধ্য করেন| এর ফলে ইংল্যান্ড জাতিরাষ্ট্র গঠনের পথে অনেকটা এগিয়ে যায়| এছাড়া ইউরোপের শক্তিশালী রাজপরিবার গুলির সঙ্গে বৈবাহিক সম্পর্ক স্থাপন করেও তিনি টিউডর রাজবংশকে শক্তিশালী করেছিলেন| এই নীতি অনুসারে তিনি স্পেনের রাজপরিবারের নিচ পুত্রের বিবাহ দেন এবং স্কটল্যান্ডের স্টুয়ার্ট রাজার সঙ্গে কন্যা মার্গারেটের বিবাহ দেন|

তবে অষ্টম হেনরির আমলে(1509-47) ইংল্যান্ডের জাতীয় রাষ্ট্রের সার্বভৌমত্ব ক্ষুণ্ন হতে বসেছিল| জাতিরাষ্ট্র গঠনের পথে ইংল্যান্ডের সবচেয়ে বড় বাধা ছিল ক্যাথলিক চার্চ| হেনরির প্রধান পরামর্শদাতা টমাস ক্রমওয়েল দুটি আইন পাশ করে ইংল্যান্ডের সার্বভৌমত্ব প্রতিষ্ঠা করেন এবং ইংল্যান্ডের রাজাকে সার্বভৌম বলে ঘোষণা করেন| 1534 সালে "Act of supremacy" আইন পাশ করে রাজাকে আনুগত্য প্রদান বাধ্যতামূলক করা হয়| চার্চের উপর পোপের কর্তৃত্বের অবসান হয়| ইংল্যান্ডের রাজাকে চার্চের প্রধান করা হয়|

এইভাবে ইংল্যান্ডে রিফর্মেশনের মধ্য দিয়ে জাতীয়ভাবে উদ্ভব হয়েছিল এবং জাতিরাষ্ট্র গঠনের সহজতর হয়েছিল এবং এর সাথে যুক্ত হয়েছিল জেন্টি শ্রেণীর উদ্যোগ| বলাবাহুল্য ইংল্যান্ডের এই জেন্টি সম্প্রদায়ে আইন ও শৃঙ্খলা পুনঃপ্রতিষ্ঠায় রাজতন্ত্রের সঙ্গে সহযোগিতা করে ইংল্যান্ডের জাতীয় রাষ্ট্র উত্থানের পথকে উন্মুক্ত করেছিল, যা আজও অব্যাহত|


তথ্যসূত্র

  1. অধ্যাপক গোপালকৃষ্ণ পাহাড়ি, "ইউরোপের ইতিবৃত্ত"
  2. C. Warren Hollister, "Medieval Europe: A Short History".

সম্পর্কিত বিষয়

সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ| আশাকরি আমাদের এই পোস্টটি আপনার ভালো লাগলো| আপনার যদি এই পোস্টটি সম্বন্ধে কোন প্রশ্ন থাকে, তাহলে নিচে কমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে জানাতে পারেন এবং অবশ্যই পোস্টটি শেয়ার করে অপরকে জানতে সাহায্য করুন|
                     .......................................

    নবীনতর পূর্বতন
    👉 Join Our Whatsapp Group- Click here 🙋‍♂️
    
        
      
      
        👉 Join our Facebook Group- Click here 🙋‍♂️
      
    
    
      
    
       
      
      
        👉 Like our Facebook Page- Click here 🙋‍♂️
    
    
        👉 Online Moke Test- Click here 📝📖 
    
    
        
      
               
    
     Join Telegram... Family Members
      
         
                    
                    
    
    
    
    
    
    
    

    টেলিগ্রামে যোগ দিন ... পরিবারের সদস্য

    
    
    
    
    
    
    
    
    
    

    নীচের ভিডিওটি ক্লিক করে জেনে নিন আমাদের ওয়েবসাইটটির ইতিহাস সম্পর্কিত পরিসেবাগুলি

    
    

    পরিক্ষা দেন

    ভিজিট করুন আমাদের মক টেস্ট গুলিতে এবং নিজেকে সরকারি চাকরির জন্য প্রস্তুত করুন- Click Here

    আমাদের প্রয়োজনীয় পরিসেবা ?

    Click Here

    ইমেইলের মাধ্যমে ইতিহাস সম্পর্কিত নতুন আপডেটগুলি পান(please check your Gmail box after subscribe)

    নতুন আপডেট গুলির জন্য নিজের ইমেইলের ঠিকানা লিখুন:

    Delivered by FeedBurner